প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইরানে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ইউক্রেনের ১১ নাগরিকের মরদেহ দেশে পৌঁছেছে

সিরাজুল ইসলাম: রোববার শোকাবহ পরিবেশে কফিনগুলো দেশটির রাজধানী কিভ বিমানবন্দরে পৌঁছায়। রয়টার্স

বিমানবন্দরে দেশটির পতাকা দিয়ে মোড়ানো কফিন একটির পর একটি সামরিক বিমান থেকে নামানো হচ্ছিল। এ সময় প্রেসিডেন্ট ভলিদিমির জেলেনস্কি সেগুলোর দিকে অপলক তাকিয়ে ছিলেন। সেখানে স্বজনরা এসেছিলেন ফুলের তোড়া নিয়ে। বিমানবাহিনীর কর্মীদের চোখেও ছিলো জল। কফিন নেওয়ার সময় কেউ কেউ হাঁটু গেড়ে বসে পড়েন।

নিহতদের স্বজন ও পুরো জাতি বিমান বন্দরে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর সুযোগ পেয়েছিলো বলে টুইটারে লেখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভাদিম প্রিসটাইকো। তিনি লেখেন, সারাবিশ্ব থেকে শোক ও পাশে থাকার বার্তা আমরা পেয়েছি।

বিমানটি ইরান থেকে কানাডা যাচ্ছিলো। ৮ জানুয়ারি তেহরানে খামেনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পরই ইরানের রেভুলেশনারি গার্ডস ভুল করে দুইটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে বিমানটি ভূপাতিত করে। এতে ১৭৬ আরোহীর সবাই নিহত হন। মার্কিন বিমান হামলার আশঙ্কায় সেদিন ইরান সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় ছিলো। কারণ সেদিন তারা বাগদাদে মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে। মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরানের জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নিতেই এ হামলা চালানো হয়।

বিমানটিতে বেশিরভাগই ইরানের যাত্রী ছিলেন। তাদের অনেকেরই দ্বৈত নাগরিকত্ব রয়েছে। নিহতদের ৫৭ জন কানাডার নাগরিক।ওই ঘটনায় কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপে রয়েছে ইরান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত