প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতীয় পতাকা অবমাননা, ক্ষমা চাইলেন স্কুল পরিচালক

বাংলাদেশ জার্নাল : চুয়াডাঙ্গায় একটি বেসরকারি মডেল স্কুলে মধ্যরাতেও উড়ছে জাতীয় পতাকা। জাতীয় পতাকার এরূপ অবমাননায় ক্ষমা চাইলেন ওই স্কুলের পরিচালক।

শনিবার রাতে জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার বাবুপাড়া এলাকায় সোনার বাংলা মডেল স্কুলে জাতীয় পতাকাটি উড়তে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২০১৬ সালে আলমডাঙ্গা উপজেলার বাবুপাড়ায় সোনার বাংলা মডেল স্কুল নামে একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠে। বর্তমানে ওই স্কুলে প্লে থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত ১৫০জন শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে। ১২ জন শিক্ষককে নিয়ে স্কুলটি পরিচালনা করেন রাশিদা বেগম। প্রতিদিনের মতো শনিবার সকালেও স্কুল খোলার পর শিক্ষার্থীদের পিটি-প্যারেড শেষে যথারীতি স্কুলের কার্যক্রম শুরু হয়। স্কুল ছুটির পর শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা বাড়ি চলে গেলেও স্কুলের জাতীয় পতাকা নামানো হয়নি, রাতেও উড়তে থাকে। পরে রাত ১১টা পর্যন্ত পতাকাটি স্কুলে উড়তে দেখে এলাকাবাসির মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। রাতেও পতাকা উড়ার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধমে ছড়িয়ে পড়লে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে নিন্দার ঝড় ওঠে সুশীল সমাজে।

এ বিষয়ে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, যেখানে স্কুল থেকেই দেশ ও দেশের স্বাধীনতাসহ জাতীয় পতাকার মান মর্যদার বিষয়ে শিক্ষার্থীরা শিখবে, সেখানে সেই স্কুলেই যদি জাতীয় পতাকার এ ধরণের অবমাননা হয় এর থেকে বড় কষ্টের আর কিছু হতে পারেনা।

স্কুলের বিজ্ঞান বিষয়ক শিক্ষক রাজন জানান, স্কুলের অফিস সহায়ক দুই দিন ধরে ছুটিতে রয়েছে। যার কারণে স্কুলের স্বভাবিক কার্যক্রমও ব্যাহত হচ্ছে। অফিস সহায়ক না থাকায় স্কুলে টাঙানো জাতীয় পতাকা নামাতে ভুলে গেছে সবাই।

সোনার বাংলা মডেল স্কুলের পরিচালক রাশিদা বেগমের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, স্কুলে রাতেও জাতীয় পতাকা উড়ছে সেটা জানেন না তিনি। পতাকার অবমাননার কথা স্বীকার করে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়াসহ দুঃখ প্রকাশ করে ভবিষ্যতে এ ধরণের ঘটনা পুনরায় আর ঘটবে না বলে আশ্বাস দেন তিনি।

জাতীয় পতাকা অবমাননার বিষয়ে আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিটন আলী জানান, নিদিষ্ট সময়ের পরও স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানো থাকাই জাতীয় পতাকার অবমাননা করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্তপূর্বক ওই স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত