প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পৃথিবী থেকে নাটকীয়ভাবে বিলুপ্ত হচ্ছে ৪০ শতাংশ কীটপতঙ্গ

সাইফুর রহমান : যা বাস্তুতন্ত্রে ডেকে আনতে পারে মারাত্মক বিপর্যয়। খাদ্য উৎপাদন এবং আমাদের জীবজগৎ রক্ষায় কীটপতঙ্গের ভুমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লন্ডনের ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামের সিনিয়র কিউরেটর ড.এরিকা ম্যাকএ্যালিস্টার বলেন, পৃথিবীর সব কীটপতঙ্গ ধংস হয়ে গেলে অনিবার্যভাবে মানুষও ধংস হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, বিভিন্ন প্রাণী বা উদ্ভিদ মরে গেলে কীটপতঙ্গ হামলে পড়ে তাদের ওপর, যার ফলে পচনের প্রক্রিয়া দ্রæততর হয়ে মাটির উর্বরতা বাড়ে। এছাড়াও এসব পতঙ্গ জৈবিক বর্জ্য পচিয়ে পৃথিবীকে পরিচ্ছন্ন রাখছে। ড. ম্যাকএ্যালিস্টার বলেন, পোকামাকড় না থাকলে আমাদের নিজেদের বিষ্ঠা আর মরা প্রাণীর মধ্যেই বসবাস করতে হতো।

সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ফ্রান্সিসকো সানচেজ বলেন, পোকামাকড় খেয়েই পাখি, বাদুড় এবং ছোট আকারের স্তন্যপায়ী প্রাণীরা বেঁচে থাকে। মেরুদন্ডী প্রাণীর ৬০ শতাংশই বেঁচে থাকার জন্য কীটপতঙ্গের ওপর নির্ভরশীল। এছাড়া পোকামাকড় না থাকলে পাখি, বাদুড়, ব্যাঙ এবং মিঠা পানির মাছও অদৃশ্য হয়ে যাবে।

এক জরিপে বলা হয়, খাদ্যশস্য উৎপাদনের জন্য অতিশয় গুরুত্বপূর্ণ পরাগায়নের যে সুফল আমরা পতঙ্গের মাধ্যমে পাই তার আর্থিক মূল্য প্রায় ৩৫ হাজার কোটি ডলার। তাই বিজ্ঞানীরা বলছেন, মানুষের নিজেদের স্বার্থেই কীট পতঙ্গকে টিকিয়ে রাখতে হবে। পৃথিবীতে তাদের নিরাপদ অভয়াশ্রম গড়ে তুলতে হবে।

সর্বাধিক পঠিত