প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তৃতীয় দিনের মত অনশন চলছে, হাসপাতালে গেলেন আরো এক শিক্ষার্থী

ওবায়দুর রহমান সোহান, ঢাবি প্রতিনিধি : সরস্বতী পূজার দিনে ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষার্থীদের টানা তৃতীয় দিন ধরে আমরণ অনশন অব্যাহত রয়েছে।

এ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে শনিবার সকাল পর্যন্ত মোট ১১ শিক্ষার্থী অসুস্থের খবর পাওয়া গেছে। সর্বশেষ শনিবার বেলা ১১টার দিকে অভি দাস প্রিতম নামের এক অনশনকারী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। অনুস্থ অভি বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের স্নাতকোত্তর বর্ষের শিক্ষার্থী।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে রাজু ভার্স্কযের পাদদেশে আমরণ অনশন শুরু করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির অর্ধশত শিক্ষার্থী। জগন্নাথ হল ইউনিয়নের সহ-সভাপতি ও হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক উৎপল বিশ্বাস এবং জগন্নাথ হল ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কাজল দাসের নেতৃত্বে রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে অনশনে বসেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শুক্রবার অনশনরতদের মধ্য থেকে একজন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি আছেন। তার নাম সুকেশ দেব। তিনি পালি এন্ড বুদ্ধিস্ট স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। এছাড়া ১০ জনের প্রাথমিকভাবে স্যালাইন চলছে অনশনরত অবস্থানে। সর্বশেষ শনিবার বেলা ১১টার দিকে অভি দাস প্রিতম নামের এক অনশনকারী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান। শুক্রবার বিকালে তিনি অনশনস্থলে যান। এসময় তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনার দিক বিবেচনা করে সিটি নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ৩০ তারিখ যে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হলো এটি কোন ব্যক্তি গোষ্ঠী বা জাতি থেকে আসেনি। এটি বানানো। তাই আমি মনে করি যদি আইন-আদালতের কোন ঝামেলা না থাকে তাহলে অসাম্প্রদায়িক চেতনার দিকটি বিবেচনা করে আর কালবিলম্ব না করে নির্বাচন কমিশনের এই তারিখটি পরিবর্তন করা উচিত।

জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের জিএস কাজল দাস বলেন, আমরা অনশনে বসেছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাব। এই অনশন হচ্ছে সর্বশেষ পর্যায়। এটা শুধু আমার বক্তব্য না, সবার একই বক্তব্য। এটা সবার দাবি।

সর্বাধিক পঠিত