প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বংশালে শিশু ও রংপুরে তরুণী ধর্ষণের অভিযোগ, মানিকগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৪

ডেস্ক রিপোর্ট : মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিঙ্গাইরের একটি গ্রামে বুধবার রাতে ধর্ষণের ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকালে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বংশালে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত কিশোরকে পুলিশ তাদের হেফাজতে নিয়েছে। আবার রংপুরে ঘরে ঢুকে এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন

সিঙ্গাইরে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ ও ধর্ষণের শিকার নারীর স্বজনেরা জানান, বুধবার মধ্যরাতে সিঁধ কেটে কয়েকজন ব্যক্তি ঘরে ঢোকে। স্বামীকে হাত-পা বেঁধে পাশের ঘরে আটকে তারা ওই নারীকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। সকালে পুলিশ খবর পেয়ে ওই নারীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠায়। তার স্বামী সিঙ্গাইর থানায় মামলা করলে উপজেলার চারিগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মো. লেবু, মতিয়ার রহমান, আবদুল মাজেদ ও মো. জহুরকে।

এদিকে, রাজধানীর বংশালে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে রাত ২ টার দিকে থানায় মামলা করেন মেয়েটির মা। বুধবার বিকালে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেছেন মা।

বংশাল থানা তদন্ত কর্মকর্তা মীর রেজাউল হোসেন জানান, ১৪ বছরের কিশোর রায়হানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মামলার আগেই সংবাদ পেয়ে অভিযুক্ত কিশোরটিকে পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়। বৃহস্পতিবার বিকালে ধর্ষণের শিকার শিশুটির অবস্থা খারাপ হলে, তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যায় পরিবার। বর্তমানে শিশুটি ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি রয়েছে।

অন্যদিকে, রংপুরের মিঠাপুকুরে ভিক্টিম তরুণীর অবস্থা আশঙ্কামুক্ত নয় বলছেন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসকরা। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত জাকির হোসেন পলাতক।

বুধবার সন্ধ্যায় বাবা-মার অনুপস্থিতিতে ওই ছাত্রীর বাড়িতে ঢুকে প্রতিবেশী জাকির হোসেন। ধর্ষণের পর পালিয়ে যায়। গুরুতর অবস্থায় মেয়েটিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে নেয়া হয় ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। অভিযুক্তকে আটক ও দ্রুত বিচার দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিত শিক্ষার্থীর পরিবার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত