প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভিক্ষা, দয়া, বুদ্ধি পরামর্শ চাই না, এই দেশের চোরদের চুরির টাকা আপনার রাষ্ট্র যে চোখবন্ধ করে হজম করে, তা নিয়ে একটু কথা বলেন সেটাই চাওয়া

 

আর রাজী : প্রসঙ্গ : চোরের দেশ। আমাদের এই বাংলাদেশে অনেক এলাকা/গ্রাম আছে যেটি চোরদের জন্য খুব নিরাপদ। যদি চুরিচামারি করে কোনোভাবে ওইসব গ্রামে ঢুকে যেতে পারেন তাহলে আপনি জানবেন ওই গ্রাম আপনার নিরাপদ আশ্রয়। অমন গ্রামকে সবাই ‘চোরের গ্রাম’ বলে সম্বোধন করে। এই চোরের গ্রামের বাসিন্দাদের একটাই যন্ত্রণা তা হচ্ছে অন্য গ্রামের মানুষজন তাদের মর্যাদা দিতে চায় না। অনেক ক্ষেত্রে গ্রামের বাইরের চোরের গ্রামের বাসিন্দাদের বিয়ে-শাদিও করা সম্ভব হয় না। তবে গ্রামের ভিতরে চোরদের মর্যাদা নির্ধারিত হয় চুরির দক্ষতা ও অর্জিত সম্পদ দিয়ে। আমাদের দেশে যেমন চোরের গ্রাম আছে তেমনি এই তথাকথিত বিশ্বগ্রাম বা গ্লোবাল ভিলেজে আছে ‘চোরের দেশ’। যেই সব দেশগুলোতে চুরির মালকড়ি নিয়ে ঢুকে গেলেই সে সব দেশের নাগরিক মর্যাদা মিলে যায়। বিশ্বচোরদের নিয়ে আমাদের সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করছে, এটা সুখের। সঙ্গে সঙ্গে চোরদের অভয়ারণ্য নিয়েও কথা বলা দরকার। তাদের সম্মানচ্যুত করা দরকার। এই যেমন কানাডা নামের একটা দেশ, শোনা যায় সেখানে এক কোটি বাংলা টাকা নিয়ে হাজির হলেই তারা আপনাকে তাদের রাষ্ট্রের নাগরিক মর্যাদা দিয়ে দেবে। টাকা আপনি কাকে মেরেধরে বানিয়েছেন তা নিয়ে কোনো প্রশ্ন করবে না। অনেকে দেশে থাকা নিজের সম্পদ বিক্রি করে ডলার বানিয়ে দাবি করে এই টাকা পাচার করা হালাল। কিন্তু এটা যে কর না দেওয়া কালো টাকা, চৌদ্দবার হজ করলেও সাদা হবে না তা কি সে জানে না? জানে বলেই বড় গলা করে, নানা যুক্তিফুক্তি দিয়ে আশপাশে মানুষের কাছে নিজেকে জাস্টিফাই করার চেষ্টা করে।

যাক সে প্রসঙ্গ, কথা হচ্ছিলো চোরের দেশ নিয়ে। এমন চোরের দেশ দুনিয়ায় অনেক আছে, যারা নিজেদের দেশটাকে সাজিয়ে গুছিয়ে নানা সুযোগ-সুবিধায় ভরে রাখছে চোরদের আকৃষ্ট করার জন্য। এই চোরের দেশগুলোর জনগণ এই টাকার সুবিধা পায়, যা চোরের গ্রামের বাসিন্দাদের চুরির ভাগ পাওয়ার মতোই। তারা চোরদের নিয়ে কথা বলে, কিন্তু নিজের দেশের চোরসেবা নীতির বিরুদ্ধে কথা বলে না। ও আমার উন্নত ভাই ও বোনেরা, আপনারা নিজেরা নিজেদের পাচার করছেন তা নিয়ে কথা না হয় এ বেলা না বললাম, কিন্তু আপনাদের উন্নত দেশের চোরসেবা নীতির বিরুদ্ধে না বলে তো পারা যায় না। উন্নত দেশে গিয়ে আটকাপড়া বাংলাদেশিদের মতো আচরণ করবেন না। চুরির টাকা অন্য কোনো দেশে পাচার না করতে পারলে এ দেশে চুরি এমনিতেই কমে যাবে। এতেই এই দেশটার উপর অনেক রহম করা হবে। আপনারা এ নিয়ে একটু সোচ্চার হন। ভিক্ষা, দয়া, বুদ্ধি পরামর্শ চাই না, আমাদের দেশের চোরদের চুরির টাকা আপনার রাষ্ট্র যে চোখবন্ধ করে হজম করে তা নিয়ে একটু কথা বলেন সেটাই চাওয়া। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত