প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী যে আওয়ামী লীগের এক নম্বরের শত্রু, ওয়াহাবিবাদের সোল এজেন্ট তা আপনারা অবিশ্বাস করতে পারেন, আমি করি না

 

স্বকৃত নোমান : প্রথমেই শুনুন মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারীর কিছু কথা। এক ওয়াজ মাহফিলে তিনি বলছেন, ‘বাংলার জমিনের লোকজন তাহাজ্জুদ পড়ে দোয়া করে, আল্লাহ, ঘরে ঘরে আহমদ শফি দাও, ঘরে ঘরে আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী দাও’। তার বাকি কথাগুলো আর বললাম না। তার ওই ওয়াজের ভিডিওটি ইউটিইউবে আছে। চাইলে যে কেউ শোনে নিতে পারেন। মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী যে আওয়ামী লীগের এক নম্বরের শত্রু, ওয়াহাবিবাদের সোল এজেন্ট, তা আপনারা অবিশ্বাস করতে পারেন, আমি করি না। আগামী ২০ জানুয়ারি মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী সিলেট যাচ্ছেন। জৈন্তাপুরের এক মাহফিলে তিনি ওয়াজ করবেন। এ মাহফিলের প্রধান অতিথি হচ্ছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ অ্যাডভোকেট মো. লুৎফর রহমান।

বিশেষ অতিথি হচ্ছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। এ ওয়াজ মাহফিল উপলক্ষে ছাপা হওয়া একটি পোস্টার সেদিন কে যেন ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন। পোস্টারটি দেখে আঁৎকে উঠেছিলাম। কাকে পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে আওয়ামী লীগ? শত্রুকে? আওয়ামী লীগ কী তার শত্রুমিত্র চেনে না? বোঝে না? বাংলাদেশের আউল-বাউল-বয়াতিরা আওয়ামী লীগের শত্রু নয়, বন্ধু।

আওয়ামী লীগের জন্য যে তারা নিজেদের প্রাণটাও দিতে কুণ্ঠিত হবে না, এই কথা কী আওয়ামী লীগ জানে না? টাঙ্গাইলের বয়াতি শরিয়ত সরকারকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। গত ক’দিনে শুভবুদ্ধিসম্পন্ন হাজার হাজার মানুষ এই গ্রেপ্তারের নিন্দা জানালেন, বয়াতির মুক্তি দাবি করলেন অথচ সরকারের কোনো টনকই নড়ছে না। এ নিয়ে একজন নেতা একটি কথাও বললেন না। আমাদের সিনিয়র লেখক, কবি, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবীরাও আশ্চর্যজনকভাবে নিশ্চুপ। প্রতিবাদ জানাচ্ছেন কেবল তরুণরাই। শরিয়ত বয়াতির মুক্তির ব্যাপারে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগের প্রয়োজন ছিলো। নেয়নি। কেন নেয়নি? আচ্ছা আওয়ামী লীগকে কারা বুদ্ধিপরামর্শ দিচ্ছে? কারা আওয়ামী লীগের বুদ্ধিজীবী? তারা কী আওয়ামী লীগের প্রকৃত শুভাকাক্সক্ষী না সুবিধাভোগী? নেতাদের সব কথায় ‘ইয়েস ইয়েস’ করাই তাদের কাজ? তাদের কী মেরুদ- নেই? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত