প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফরিদপুরে সংঘর্ষে জড়াল নিক্সন-জাফরউল্লাহপন্থিরা

আমাদের সময় : ফরিদপুর-৪ আসনের স্বতন্ত্র এমপি মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহর মধ্যেকার রাজনৈতিক বিরোধ সহিংসতায় রূপ নিচ্ছে। গতকাল শনিবার সকালে ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলায় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের কর্মসূচিতে এই দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়েছে। এতে চার পুলিশসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের সদরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১১টার দিকে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কাজী জাফরউল্লাহ সমর্থক ও এমপি নিক্সন সমর্থকরা পৃথক পৃথক মিছিল বের করেন। মিছিল দুটি সদরপুর স্টেডিয়ামের সামনে মুখোমুখি হলে স্লোগান দেওয়া নিয়ে উভয়পক্ষে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু হয়। একপর্যায়ে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষের একপর্যায়ে সদরপুর স্টেডিয়াম মাঠে মুজিববর্ষ ২০২০ প্রীতি ফুটবল ম্যাচের মঞ্চ ভাঙচুর করা হয়। পুলিশ রবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ফের সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. সাইফুজ্জামান ও (ভাঙ্গা সার্কেল) গাজী রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে গিয়ে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা হলেন এসআই ফরহাদ, এসআই কামরুজ্জামান, এএসআই রবিউল ইলাম ও কনস্টেবল জাহাঙ্গীর হোসেন। আহত অন্যরা হলেন সদরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাত্তার ফকির, যুবলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন, বাপ্পি, জুয়েল হাওলাদার, শাওন আহমেদ। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড রবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মশিউর রহমান মীম অভিযোগ করেন, ফরিদপুর-৪ আসনে (স্বতন্ত্র) এমপি মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক বহিষ্কৃত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমানের নেতৃত্বে শতাধিক ব্যক্তি অতর্কিত হামলা চালায়।

তবে অস্বীকার করে এমপি নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমান বলেন, এ হামলার বিষয়ে এমপি নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। ছাত্রলীগের বেশ কিছু নেতা উল্টো নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের মিছিলে হামলা চালায়। তিনি আরও বলেন, হামলার খবর পেয়ে আমি সেখানে গিয়ে সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করেছি মাত্র। তিন দিন আগে কাজী জাফরউল্লাহ সদরপুরে জনসভা করে উসকানিমূলক বক্তব্য রেখেছিলেন। এ কারণে সংঘর্ষ হতে পারে।

উল্লেখ্য, সদরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী শফিকুর রহমান এমপি মুজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক। অন্যদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সত্তার ফকির কাজী জাফরউল্লাহ সমর্থিত। অনুলিখন : তন্নীমা আক্তার

সর্বাধিক পঠিত