প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করতে উইঘুর মুসলিমদের শতাধিক কবরস্থান গুড়িয়ে দিয়েছে চীন

সিরাজুল ইসলাম : চীনের উইঘুর সম্প্রদায়ের একজন কবি আজিজ ইসা এলকুন। ২০ বছর আগে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের জিনজিয়াং প্রদেশে যুদ্ধের সময় তিনি দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান লন্ডনে। আর দেশে ফিরতে পারেননি। এমনকি তিনি মায়ের কাছে ফোনও করতে পারেন না। কারণ সব সময়ই পুলিশ তার দরজায় (চীনের বাড়ি) নজর রাখে। ২০১৭ সালে তার বাবা মারা গেছেন। তখনও তিনি দেশে ফিরতে পারেননি। যেতে পারেননি শোকার্ত পরিবারের কাছে।

তিনি গুগল আর্থে বাবার কবর দেখতেন। পুরনো স্মৃতি হাতড়ে বেড়াতেন। শিশুকালে বাবার সঙ্গে যেসব মসজিদ, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও আত্মীয়র বাড়ি যেতেন, সেগুলো দেখতেন ছবিতে। কিন্তু দুই বছর আগে সব বদলে গেছে।

গুগল আর্থে সেই ছবিগুলো নেই। কারণ চীন সরকার সেখানকার মুসলিমদের শতাধিক কবরস্থান গুড়িয়ে দিয়েছে। নির্মাণ করা হয়েছে ফ্লাট, আবার কোথাও রয়েছে খালি জায়গা। তার ধারণা নেই সেখানে আরো কী কী হয়েছে। এতে তিনি ভীষণ ব্যথিত। তার কথার প্রমাণ মিলেছে সিএনএনের নিজস্ব অনুসন্ধানেও। তীব্র সমালোচনার মুখেও গত দুই বছরে শতাধিক কবরস্থান গুড়িয়ে দিয়েছে চীন। মুসলিমদের ধর্মীয় বিশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করতেই এ কাজ করা হচ্ছে।

গত অক্টোবরে কবরস্থান গুড়িয়ে দেওয়ার খবর প্রথম প্রকাশ করে এএফপি। এতে বলা হয়েছে, ২০১৪ সাল থেকে অন্তত ৪৫টি কবরস্থান গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষার পর সেখানে পাওয়া হাড়গোড় মানুষের বলে নিশ্চিত করেছেন বিজ্ঞানীরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত