প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভোট দেয়ার সময় শুধু সিল মারার অপশন থাকে, কোন মার্কায় কেন সিল মারছেন, সেই ব্যাখ্যা আপনার কাছে কেউ শুনতে চায় না

 

ইরফানুর রহমান রাফিন : নিচের দুইটা সিনারিওর যেকোনো একটা কনসিডার করেন। ১. দুনিয়ার কোনো একটা দেশে সরকার আইন করে দিলো কোনো উপলক্ষেই নাগরিকরা আর পটকা ফোটাতে বা আতশবাজি পোড়াতে পারবে না, কেননা এতে প্রতিবেশের ভীষণ ক্ষতি হয়। শুধু তাই নয়, আইনে বলা থাকলো, কেউ এমনটা করলে তাকে ঠা-া মাথায় গুলি করে মেরে ফেলা হবে। কারণ ‘ব্যক্তি স্বাধীনতার’ চেয়ে ‘মানবজাতির বৃহত্তর স্বার্থ’ গুরুত্বপূর্ণ। ২. দুনিয়ার অন্য একটা দেশে আরেকটা সরকার আইন করে দিলো, যেকোনো উপলক্ষেই নাগরিকরা পটকা ফোটাতে বা আতশবাজি পোড়াতে পারবে, এতে প্রতিবেশের ক্ষতি হলেও কিছু আসে যায় না। শুধু তাই নয়, আইনে বলা থাকলো, কেউ পটকা ফোটানো বা আতশবাজি পোড়ানো থেকে ব্যক্তিগতভাবে বিরত থাকতে চাইলে তার সেই অধিকারও থাকবে। কারণ ‘মানবজাতির বৃহত্তর স্বার্থের’ চেয়ে ‘ব্যক্তি স্বাধীনতা’ গুরুত্বপূর্ণ।

এই দুইটা সিনারিওর কোনোটাই হয়তো পারফেক্ট নয়। কিন্তু আমরা পারফেক্ট দুনিয়ায় থাকি না ভাই। আমাদের সামনে বেছে নেয়ার জন্য যেই চয়েসগুলো থাকে তার সবগুলোই বিভিন্ন মাত্রায় ইমপারফেক্ট। আপনাকে যদি এই দুটো দেশের যেকোনো একটার নাগরিক হতে বলা হয়, আপনি দেশগুলোর মধ্যে কোনটাকে বেছে নেবেন? যদি দেখানোর জন্য কোনো বিকল্প না থাকে? যদি একটা বেছে নিতে আপনি বাধ্য হন? যারা এই জরিপে অংশ নিতে চান, কমেন্ট থ্রেডে ১ বা ২ লিখুন। ব্যাখ্যা দিলে আপনার ভোট বাতিল বিবেচিত হবে। ভোট দেয়ার সময় শুধু সিল মারার অপশন থাকে, কোন মার্কায়, কেন সিল মারছেন সেই ব্যাখ্যা আপনার কাছে কেউ শুনতে চায় না। ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত