প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থীদের ম্যানেজ করতে দুদলই তৎপর

মাজহারুল ইসলাম : ৩০ জানুয়ারি রাজধানীর দুই সিটির মেয়র ও কাউন্সিলর পদে নির্বাচন। বিএনপি অংশ নেয়ায় জমে উঠছে ভোটের লড়াই। তবে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে রয়েছে অস্বস্তি। কয়েক দফা বৈঠক করে একক প্রার্থী চূড়ান্ত করলেও বিদ্রোহীদের থামাতে পারছে না আওয়ামী লীগ ও বিএনপি।

দুই দলের নীতিনির্ধারকরা একক প্রার্থী নিশ্চিত করতে এখন বিদ্রোহীদের বুঝিয়েশুনিয়ে তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের উদ্যোগ নিয়েছেন। যদিও উভয় দলই নিশ্চিত করেছে, কাউন্সিলর পদে নিবার্চন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে না। ৯ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে বোঝা যাবে, লড়াই নিজের সঙ্গে নাকি অন্যদলের সঙ্গে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, দল থেকে প্রতি ওয়ার্ডে একক প্রার্থীকে সমর্থন দেয়া হয়েছে। আমাদের চেষ্টা থাকবে শেষ পর্যন্ত দলীয় একক প্রার্থী রাখা। কারণ বিএনপি সিটি নির্বাচনে অংশগ্রহণ নিচ্ছে। তাই একক প্রার্থী না থাকলে এই নির্বাচনে জয় পওয়া কঠিন হবে। তিনি আরও বলেন, এর আগে জাতীয় নির্বাচনসহ অন্যান্য নির্বাচনে অংশ নেয়া বিদ্রোহী প্রার্থীদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করায়, বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে তাদের কিছু উৎসাহ জুগিয়েছে।

একই প্রসঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলর বাছাই সংক্রান্ত মনোনয়ন বোর্ডের সমন্বয়ক মোহাম্মদ শাহজাহান গণমাধ্যমকে বলেন, সময় স্বল্পতার কারণে কিছু ওয়ার্ডে একক প্রার্থী নিশ্চিত করা যায়নি। যেহেতু আরও কয়েকদিন সময় আছে এরমধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থীদের বোঝাতে হবে। তিনি আরও বলেন, আশা করছি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় বিদ্রোহীরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার করবে। সম্পাদনা : সালেহ্ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত