প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজাকারের তালিকায় হবিগঞ্জ জেলার ১২ জনের নাম প্রকাশ

আজিজুল ইসলাম সজীব,হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: প্রথম দফায় সারাদেশের ১০ হাজার ৭৮৯ জন রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। রোববার (১৫ ডিসেম্বর) মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই তালিকা প্রকাশ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, এটি আমাদের প্রস্তুত করা কোনো তালিকা নয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রেকর্ড অনুসারে যাদের তথ্য-উপাত্ত পাওয়া গেছে আমরা সেগুলো প্রকাশ করছি। পর্যায়ক্রমে আরও তালিকা প্রকাশ করা হবে।

রাজাকার ১২ জনের নাম হল, হবিগঞ্জ শহরের কোর্ট স্টেশনরোড এলাকার বাসিন্দা মো. আব্দুল বারি, ননোহরগঞ্জ এলাকার মো. সৈয়দ ইমরুল আসান, পৌর শহরের মো. আব্দুল্লাহ, সদর উপজেলার বাতাসর গ্রামের অ্যাডভোকেট মো. ফজলুল হক, সুলতানসী এলাকার রজব আলী, মাধবপুর উপজেলা দেবনগর গ্রামের হিরা মিয়া, ইনুস মিয়া, বানিয়াচং উপজেলার খাগুড়া গ্রামের মৌলভী আব্দুর রহমান, মুসলিম উদ্দিন, চুনারুঘাট উপজেলার মানিকাবাদ গ্রামের কাজী আব্দুল গফফুর, বানিয়াচংয়ের মো. ফজলুল হক, আজরিমীগঞ্জ উপজেলার মো. রফিক আহমেদ।

মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, আমরা অঙ্গীকার বলছিলাম, এরই বাংলার মাটিতে কোনোভাবেই রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ করব। দালিলিক প্রমাণের মাধ্যমে তাদের নাম প্রকাশ করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে যেগুলো উদ্ধার করতে পেরেছি সেই তালিকাটি আমরা প্রাথমিকভাবে প্রকাশ করতে পারছি। মহান জাতীয় সংসদে আমাদের অঙ্গীকার ছিল রাজাকারদের তালিকা করা হবে। সেই প্রতিশ্রুতির আলোকে আমরা প্রথম পর্যায়ের তালিকা প্রকাশ করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান, এ সময় তিনি আরো বলেন, জেলা প্রশাসকদের অনুরোধ জানিয়েছি। দুঃখজনক হলে সত্য, আমরা আশানুরূপ সাড়া পাইনি।

যেহেতু এটি ৪৮ বছরের পুরনো রেকর্ড, সেগুলো পেতে সময় লাগবে। তাই জেলা প্রশাসকদের সময় দেওয়া বাঞ্ছনীয় বলে মনে করি।
পলে সংবাদ সম্মেলনের পর আবার জেলা প্রশাসকদের কাছে অনুরোধ জানানো হবে। তাদের এক দেড় মাস সময় দেয়া প্রয়োজন বলে মনে করি।
আ. ক. ম মোজাম্মেল হক বলেন, একাত্তর সালে যে সব গেজেট হয়েছিল, আমরা সেগুলো উদ্ধার করার চেষ্টা করছি। ১৯৭১ সালের সমস্ত গেজেট তারা ঠিকমতো দিতে পারেনি। ১৯৭১ সালে একটি নির্বাচন হয়েছিল। ইয়াহিয়া খান সমস্ত আসন শূন্য ঘোষণা করে উপ-নির্বাচন করেছিল। ওই সময়ে যারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হয়েছিল আমরা সেই তালিকা নির্বাচন কমিশনে চেয়েছি। তারা এখনও সরবরাহ করতে পারেনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত