প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিভোর্সের পর শাকিব ছেলের কোনো খরচ দেয় না, বললেন অপু বিশ্বাস(ভিডিও)

বিনোদন ডেস্ক : ভালোবেসে ২০০৮ সালে বিয়ে করেছিলেন চিত্রনায়ক শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়ের জন্ম ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি হাসপাতালে। আর ২০১৮ সালে বিচ্ছেদ হয় এই তারকা জুটির।

ডিভোর্সের পর শাকিব ছেলের কোনো দায়িত্ব পালন করেননি। সবকিছুই করেছেন অপু বিশ্বাস। শুধু তাই নয়, ছেলের সকল খরচও বহন করতে হয়েছে এই চিত্রনায়িকাকে- এমনটাই দাবি করেছেন অপু।

অপু বিশ্বাস বলেন, ‘জয়কে আমি খুব ছোটবেলায় স্কুলে দিয়েছিলাম। ওর বয়স তখন ছিল দুই বছর। এই দুই বছর স্কুলের খরচটাই ও (শাকিব খান) দিয়েছে। আর আমার ব্যক্তিগত একটা প্রয়োজনে তার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ধার নিয়েছিলাম। তিন-চার মাস যখন আমি কোনো ফিডব্যাক পাচ্ছিলাম না, তখন আমাকে সে এসএমএস পাঠিয়েছে, যে ১০ লাখ টাকা দিয়েছি ওটা বাচ্চার খরচ। এটা আজ থেকে দেড় বছর আগের কথা।’

তিনি আরও বলেন, ‘একটা তো সম্পর্ক ছিলোই, সে জায়গা থেকে বা আস্থার জায়গা থেকে টাকাটা আমি চেয়েছিলাম। কিন্তু এটা আমি আমার ছেলের খাবারের খরচ হিসেবে কিন্তু চাইনি। এটা আমার একটা প্রয়োজন ছিল। এরপর সে চুপচাপ। কাছের ক’জন সাংবাদিক বা সবাইকে সে বলে যাচ্ছে, ছেলের খরচ তো আমি দেই। এটা সম্পূর্ণ ভুল, সে একটি টাকাও দেয় না। আর আমিও মনে করি না, সে দেক।’

শাকিব তার সন্তানকে দেখে না এবং দেখার চেষ্টাও করে না দাবি করে অপু বলেন, ‘সবাইকে সে বলে বেড়ায় বাচ্চাকে অপু দেখতে দেয় না। অপু যদি দেখতে নাই দেয়, এ পর্যন্ত তার বাসায় কাজের লোক দিয়ে ছেলেকে প্রায় হাজার বার পাঠিয়েছি।’

বিয়েটা কেন টেকেনি বা কেন সুখের হয়নি প্রশ্নের উত্তরে অপু বলেন, ‘এটার কারণই হচ্ছে বাচ্চা। বেলা শেষে আমি একটা মেয়ে, আমার একটা পরিচয় হওয়া দরকার। আর মেয়ের বড় পরিচয় সে একজন মা। তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, বাচ্চা নেওয়া। সে আমাকে দুটো সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিল, হয় বেবি না হয় ডিভোর্স। তখন আমি বলেছি, অবশ্যই ডিভোর্স। বেবিকে মিস করতে পারবো না। আমার কমিটমেন্ট আমি রেখেছি তার কমিটমেন্ট সে রেখেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি একজনকে কথা দিয়েছিলাম, তোমাকে পৃথিবীতে আমি জন্ম দেব। পৃথিবীর আলোও দেখাবো এবং তোমাকে একটা সুন্দর পরিচয় দেব। এই তিনটি স্টেপ শেষ হওয়ার পর আমার এখন সবচেয়ে বড় দায়িত্ব হয়ে পড়েছে, তাকে এখন সুন্দরভাবে মানুষ করা। সেটা আমি করছি।’

অপু জানান, জয় আসার পর থেকেই তাকে অনেক সংগ্রামের মুখে পড়তে হয়েছে। সাংবাদিক ও পরিবার তাকে মানসিক সমর্থনটা দিয়েছে ঠিকই। কিন্তু আর্থিক সাপোর্টটা তিনি কোথাও থেকে পাননি। নিজেকে জোগাড় করতে হয়েছে নানারকম বিজ্ঞাপন, সিনেমা ও শো থেকে। আর শাকিব মাসে-বছরে একদিন একটা গিফট দেয়, হঠাৎ একদিন দেখা করতে আসে আর সেগুলো দিয়েই সে সংবাদ প্রকাশ করায়।

উল্লেখ্য, ঢাকাই সিনেমার সুপারহিট জুটি ছিলেন শাকিব-অপু। এখন পর্যন্ত তাদের ৭৩টি ছবি মুক্তি পেয়েছে। যেগুলোর প্রায় সবই সুপারহিট। ছবি করতে গিয়েই তাদের কাছাকাছি আসা। সেখান থেকে বন্ধুত্ব-প্রেম ও বিয়ে। দৈনিক আমাদের সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত