প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফুলকপির বাজার ভালো, খোশমেজাজে নীলফামারীর কৃষকেরা

তন্নীমা আক্তার : শীতের সবজি ফুলিকপির চাহিদা বেশ ভালোভাবেই বাজারে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ফুলিকপি বিক্রি করেও কৃষকরা লাভবান হচ্ছে। নীলফামারীর দুবাছুরি গ্রামে গিয়ে দেখা যায় মাঠভরা ফুলকপির আবাদ। ব্যবসায়ীরা সেখান থেকে কিনে ট্রাকযোগে নিয়ে যাচ্ছেন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন বাজারে। বাসস

এরই মধ্যে এক বিঘা জমির ফুলকপি ৬৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন এখানকার এক কৃষক। প্রতিবিঘায় খরচ হয়েছে ১৮ হাজার টাকা। ক্ষেত থেকে প্রতিটি কপি ২০ থেকে ২২টাকা দরে বিক্রি করেছেন। এ গ্রামের আরেক কৃষক বলেন, ধানের চেয়ে সবজিতে লাভ বেশী। আমার এক বিঘায় কপি চাষে খরচ ১৬ হাজার টাকা। আধা বিঘা জমির ফুলকপি বিক্রি করেছি ৩০ হাজার টাকায়।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা এস এম রকিব আবেদীন বলেন, আমার দায়িত্বের ওই ব্লকে এখন পর্যন্ত ২০ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ হয়েছে। এরমধ্যে ৭ হেক্টর জমিতে ফুলকপির চাষ হয়। এ এলাকার জমি উঁচু হওয়ায় পানি জমে না। এ কারণে আগাম সবজির চাষ বেশি হয়। ফুলকপি চাষে সময় কম লাগে এবং দামও ভালো পাওয়া যায়। তিনি বলেন, আগে এ এলাকার মানুষের অভাব অনটন ছিলো। এখন সবজি চাষ করে তারা লাভবান হচ্ছেন, তাদের স্বচ্ছলতাও এসেছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য) মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, এ পর্যন্ত জেলায় প্রায় সাড়ে ৫হাজার হেক্টর জমিতে সবজির চাষ হয়েছে। এ বছর বাজারে সবজির দাম ভালো থাকায় কৃষকরা লাভবান হচ্ছেন। সম্পাদনা : মাজহারুল ইসলাম

সর্বাধিক পঠিত