প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পরীক্ষার নামে কালক্ষেপণ, খালেদা জিয়াকে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে অভিযোগ ড্যাবের

শাহানুজ্জামান টিটু: খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসকগণ তাঁর মেডিকেল রিপোর্ট দুই দফা প্রস্তত করে।বেগম খালেদা জিয়াকে তার প্রাপ্য জামিন দিয়ে মুক্ত পরিবেশে তার পছন্দমতো হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হোক।অন্যথায় চিকিৎসক সমাজ নীরবে বসে থাকবে না।দেশের সকল জনগণকে সাথে নিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়ার বর্তমান শারিরীক অবস্থা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে ড্যাব বিএসএমএমইউ শাখা চিকিৎসক নেতারা এ কথা বলেন।

জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আগেই খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দ্বারা তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছে ড্যাব।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ড্যাবের বিএসএমএমইউ শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. শেখ ফরহাদ বলেন, ইদানিং সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য সম্পর্কে গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিচ্ছেন। গত ২৮ অক্টোবর বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ সংবাদ সম্মেলন করে তারা অসত্য বিভ্রান্তিমূলক ও পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দিয়েছেন।খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তীলে তীলে নিঃশেষ করে দেওয়ার অপপ্রয়াসে তাঁর স্বাস্থ্য সম্পর্কিত অসত্য সংবাদ পরিবেশন করেছেন।যা বলেছেন তা সত্যের অপলাপ।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া চরম অসুস্থতায় ভুগছেন।বাস্তবিক অর্থে উনি ধীরে ধীরে পঙ্গুত্বের দিকে যাচ্ছেন।এই সময় যথাযথ চিকিৎসা না দিলে তার এই অবস্থা স্থায়ী রূপ নিতে পারে।অথচ বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ সরকারের অশুভ ইশারায় জাতিকে বিভ্রান্ত করতে ও খালেদা জিয়ার প্রাপ্য জামিন ভণ্ডুল করতে সত্য গোপন করছেন।

বিএসএমএমইউ’র উপাচার্যর কাছে জমা দিয়েছেন।তদুপরি অধিকতর পরীক্ষার নামে কালক্ষেপণের মাধ্যমে দেশনেত্রীকে স্বাস্থ্য ঝুঁকির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।যা বাংলাদেশের মৌলিক অধিকারের পরিপন্থি ও মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন।এটা খালেদা জিয়াকে মৃত্যু ঝুঁকির দিকে ধাবিত করার অপকৌশল।

সর্বাধিক পঠিত