প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মারা গেছেন ভারতের উন্নাওয়ের নির্যাতিতা তরুণী

রাশিদ রিয়াজ :  মৃত্যুকালীন জবানবন্দিতে বছর তেইশের ওই তরুণী পুলিশকে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টের সময় রেলস্টেশনে প্রথম তাঁর উপর হামলা হয়। 'ওরা লাঠি দিয়ে আমার পায়ে আঘাত করে। আমি হুমড়ি খেয়ে স্টেশনে পড়ে গেলে, আমার ঘাড়ে ধারালো ছুরি দিয়ে কোপাতে থাকে। সেই অবস্থায় ওদের একজন আমার গায়ে পেট্রোল ঢেলে, দেশলাই মেরে দেয়।' হাসপাতালের শয্যায় শুয়ে এই বয়ানই দিয়েছেন উন্নাওয়ের তরুণী।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে গণধর্ষণের শিকার হন উন্নাওয়ের ওই তরুণী। সেই মামলায় সাক্ষ্য দিতেই বৃহস্পতিবার একদম ভোরে বাড়ি থেকে বেরিয়ে রায়বরেলির পথে রওনা দিয়েছিলেন। রায়বরেলির আদালতে় এই মামলার শুনানি চলছিল। কিন্তু সব লড়াইয়ে ইতি টেনে, শুক্রবার রাতে দিল্লির হাসপাতালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের সেই নির্যাতিতা। সূত্রের খবর, শুক্রবার রাত ১১.৪০ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। কারও শরীরের নব্বই শতাংশ পুড়ে গেলে, এমনিতেই বাঁচার আশা ক্ষীণ। তা-ও বাঁচতে চেয়েছিলেন উন্নাওয়ের নির্যাতিতা। আগুনে পোড়া শরীরটা নিয়ে ছুটে গিয়েছিলেন এক কিলোমিটার। চিত্‍‌কার করে, সাহায্য চেয়েছেন। কেউ তাঁর আর্তিতে সাড়া দেয়নি। তবু, মন্দের ভালো, একজনকে পেয়েছিলেন, যিনি তাঁর মোবাইল ফোনটা হাতে তুলে দিয়েছিলেন তরুণীর। সেই মোবাইল থেকেই ফোন করে অ্যাম্বুল্যান্স ডেকেছিলেন। 'ধর্ষক'দের লাগানো আগুন, সহজে তাঁকে কাবু করতে পারেনি। সময় যত গড়াচ্ছিল, হয়তো শরীরই জানান দিচ্ছিল লড়াইয়ের শক্তি ফুরোচ্ছে। পুলিশের কাছে মৃত্যুকালীন জবানবন্দিতে তাঁর আর্জি ছিল একটাই, 'দেখবেন অপরাধীদের একজনও যেন ছাড়া না পায়।'

 

সর্বাধিক পঠিত