প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিমানে আসা পেঁয়াজ কই, প্রশ্ন মান্নার

শিমুল মাহমুদ : জিনিস পত্রের দাম গত ৫০ বছরের রেকড ছাড়িয়েছে জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, এ সরকার পেয়াজের দাম, চালের দাম, সবজি কোনটায় কমাতে পারেনি। এখন আবার নতুন করে পায়তারা করছেন বিদ্যুৎতের দাম বাড়ানোর জন্য। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘নাগরিক নারী ঐক্য’ আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বক্তৃতা করবার সময় আপনারা বলেন, কোনো চিন্তা নেই বিমানে উঠে গেছে পেঁয়াজ। এ পেঁয়াজ কই? জাহাজ গুলো যে নামলো, এই পেঁয়াজ কই? তবে পেঁয়াজের দাম কমলো না কেনো?

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আওযামী লীগের অনেক লম্বা ঐতিহ্য আছে, অনেক সংগ্রাম করেছে, কিন্তু এবার যে ক্ষমতা নিয়েছেন সেটা কোনো মানুষের রায়ে নেননি। মানুষ আপনাদের ভোট দেয়নি। আপনারা ভোট দিতে দেননি। ভোট দখল করে নিয়েছেন আগের রাত্রে। আপনাদের ক্ষমতায় থাকার কোনো অধিকার নাই। এখন যে ক্ষমতায় আছেন এটা অবৈধ। আপনার কোনো কাজ ঠিকমতো করতে পারছেন না। আবার নতুন করে পায়তারা করছেন বিদ্যুৎতের দাম বাড়ানোর জন্য।

তিনি বলেন, বিরাট উচু গলায় হুমকি দিচ্ছি না, এ প্রেসক্লাবের সামনে অনেকে বলেছে, যদি বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয় তাহলে তারা হরতাল ঘোষণা করবে। আমিও বলি, গণশুনানিতে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো কোনো যুক্তি আপনারা দেখাতে পারেননি। অতএব বিদ্যুতের দাম বাড়তে পারবেন না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, কাজের মধ্যে একটায় পারেন। যে আপনাদের বিরুদ্ধে কথা বলে, তাকে জেলে ঢুকিয়ে রাখেন। বেগম জিয়া জেলে রেখেছেন। সবাই বলেছে জামিন পাওয়া তার অধিকার আছে। তবে তাকে জামিন দেবেন না কোনো? আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার মেডিক্যাল রিপোর্ট দেয়ার জন্য সময় বেঁধে দেন। এতোদিন সময় নেওয়ার পরও মেডিক্যাল বোর্ড তার স্বাস্থ্যের সার্টিফিকেট দিতে পারেনি।

আমাদের নামে অভিযোগ করেন, আমার আদালত মানি না, আইন মানি না। মেডিক্যাল বোর্ড অথবা বিএসএমএমইউ কি আদালত মানে? যদি মানতো তাহলে তো আদালতে রিপোর্ট দেওয়ার কথা ছিলো। তারা রিপোর্ট জমা দিতে যখন ব্যর্থ হলো। তখন আদালত বলতে পারত, আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মেডিক্যাল রিপোর্ট যেন তারা জমা দেন। কিন্তু আদালত সেটা না করে আগামী ১২ ডিসেম্বর শুনানির জন্য আবার দিন ধার্য করেছেন।

তিনি বলেন, ১২ তারিখে দিন ধার্য করেছেন কারণ ১৩ তারিখ থেকে আদালত র্দীঘ দিনের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে এই জন্যে তো। সব ধান্দাবাজী। সময় আসছে, দিন আসছে। মানুষ মাঠে নামবে। জোর করে হলেও সব অধিকার আদায় করে নেবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত