প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডেডলাইন ২০২৪, সারাভারতে এনআরসি চালুর হুঁশিয়ারি অমিত শাহের!

রাশিদ রিয়াজ : সোমবার ঝাড়খণ্ডের নির্বাচনী জনসভায় অমিত শাহ বলেন, ‘২০২৪ লোকসভা নির্বাচনের আগে দেশ থেকে সমস্ত অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের বিদায় করবে মোদী সরকার।’ উপস্থিত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের আশ্বাস দিচ্ছি, ২০২৪ সালের ভোটের আগে সারা দেশে এনআরসি কার্যকর করা হবে, এবং সমস্ত অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করে বহিষ্কার করা হবে।’ বিরোধীরা সোচ্চার হয়েছেন, বিভিন্ন রাজ্যের ভোটের ফলেও বিজেপির বিপক্ষে রায় এসেছে। তবু এনআরসি নিয়ে দমে যাওয়ার পাত্র নন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির কেন্দ্রীয় সভাপতি অমিত শাহ। একাধিকবার গোটা দেশে এনআরসি চালু করার কথা বলেছেন তিনি। তবে সোমবার গোটা দেশে এনআরসি চালু করার ডেডলাইনও বলে দিলেন তিনি।

শুধু তাই নয়, রাহুল গান্ধীর আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে কেউ অবৈধ অনুপ্রবেশকারী আছেন কিনা, তা নিয়েও কটাক্ষ করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ‘এই যে রাহুল বাবা বলেন, এনআরসি কেন? অনুপ্রবেশকারীদের তাড়াচ্ছ কেন? যাবে কোথায়, খাবে কী? কেন মশাই, আপনার খুড়তুতো ভাই হন কেউ? ২০২৪ এর আগে দেশ থেকে প্রত্যেক অনুপ্রবেশকারীকে বেছে বেছে তাড়াবে বিজেপি সরকার।’

এদিকে  নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহকে অবৈধ অনুপ্রবেশকারী বলে কটাক্ষ করেছেন লোকসভায় কংগ্রেেসর দলনেতা অধীর চৌধুরী। তাঁর কথায়, ”ভারতবর্ষ সবার। ভারতবর্ষ কারও ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়। সবার সমান অধিকার আছে এখানে। অমিত শাহ জি, নরেন্দ্র মোদী জি আপনারা নিজেরাই অনুপ্রবেশকারী। ঘর গুজরাতে, অথচ থাকেন দিল্লিতে। আপনারাই তো নিজেরা অনুপ্রবেশকারী।’ এরফলে এদিন সংসদে অধীরের ক্ষমার দাবি জানায় বিজেপি। আক্রমণ করা হয় সোনিয়া গান্ধীকেও।

দিনকয়েক আগেই সংসদে অমিত শাহ জানান, সব রাজ্যে এনআরসি কার্যকর করা হবে। তবে তার আগে প্রয়োগ করা হবে নাগরিক (সংশোধিত) বিল। অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের এদেশে ঠাঁই হবে না বলেও সাফ জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তাঁর কথায়, এনআরসি প্রক্রিয়া সারা ভারতে কার্যকর হবে। কোনও ধর্মের মানুষেরই উদ্বেগের কোনও কারণ নেই, এটা এমন একটা প্রক্রিয়া যাতে সকলেই এনআরসির আওতায় আসতে পারেন।

তবে অমিত শাহের সোমবার বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বিরোধীদের সঙ্গে এনআরসি সংঘাত যে কয়েকগুণ বাড়বে, তা বলাই বাহুল্য।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত