প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক: মিরসরাই নিষিদ্ধ হলেও বন্ধ হয়নি ব্যাটারিচালিত রিক্সা

নুরুল আলম : ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ে অনিয়ন্ত্রিতভাবে চলছে ব্যাটারিচালিত রিক্সা। সড়ক আইনে মহাসড়কে তিন চাকার যান চলাচল নিষিদ্ধ হলেও মিরসরাইয়ে যেন এর ব্যতিক্রম। ব্যাটারিচালিত রিক্সার কারণে দুর্ঘটনা বাড়ার পাশাপাশি হচ্ছে বিদ্যুতের অপচয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পরও মহাসড়কে বেপরোয়াভাবে চলছে অনিয়ন্ত্রিত ব্যাটারচালিত রিক্সা। মহাসড়কে ইউটার্ন ব্যবহার না করে উল্টোপথে চলার কারণে ঘটছে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা। মহাসড়কের মিরসরাই অংশে বড় বড় বাজারগুলোতে সাধারণ মানুষের যাতায়াতের বিকল্প ছোট পরিবহনের ব্যবস্থা না থাকায় মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়ে ব্যস্ততম মহাসড়কে ব্যাটারিচালিত রিক্সায় যাতায়াত করছেন। সম্প্রতি বড়তাকিয়া রেল স্টেশন সড়কের মুখে দেখা যায়, ৩০ মিনিটের মধ্যে মহাসড়কের উভয় লেইনে বড়তাকিয়া বাজার থেকে প্রায় ১০-১৫টি ব্যাটারিচালিত রিক্সা যাতায়াত করেছে। মহাসড়কে ইউটার্ন দেড় থেকে দুই কিলোমিটার দূরে হওয়ায় রিক্সা চালকরা একই পথে আসা যাওয়া করে। সর্বশেষ গত ১৩ নভেম্বর দুপুরে বড়তাকিয়া এলাকায় ব্যাটারিচালিত রিক্সা ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ জন আহত হয়েছে। ব্যাটারিচালিত রিক্সার দাম কম ও ভাড়া বেশি হওয়ায় অনেকে এটিকে নতুন ব্যবসা হিসেবে নিয়েছে। বিদ্যুৎ নির্ভর হওয়ায় ব্যাটারিচালিত রিক্সার কারণে নষ্ট হচ্ছে দেশের মূল্যবান সম্পদ বিদ্যুৎ। বারইয়াহাট পৌর বাজার, মিরসরাই পৌর বাজার, বড়তাকিয়া বাজার, নিজামপুর বাজারে মহাসড়কের উপরেই পার্কিংয়ে রাখা হয় ব্যাটারিচালিত রিক্সা।

মহাসড়ক ছাড়াও উপজেলার বারইয়াহাট-রামগড় সড়ক, বারইয়াহাট-শান্তিরহাট সড়ক, মিঠাছড়া-বামনসুন্দর দারোগাহাট সড়ক, ঠাকুর দিঘী-ঝুলনপোল সড়ক, জোরারগঞ্জ-আবুরহাট সড়ক, জোরারগঞ্জ-টেকেরহাট সড়ক, মিরসরাই পৌর বাজার-কালামিয়ার দোকান, মিরসরাই পৌরসভার-ব্র্যাক খামার, নিজামপুর-ভোরেরবাজার সড়ক, বড়তাকিয়া-আবুতোরাব সড়ক, বড়দারোগাহাট-কমর আলী সড়কে এসব গাড়িগুলো বেশি চলাচল করে বলে জানা গেছে।

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের দায়িত্বে নিয়োজিত উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল সরকার বলেন, মহাসড়কে ব্যাটারিচালিত রিক্সা বা নছিমন-করিমন (ভটভটি) দেখলে আমরা আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। মহাসড়কের অবৈধ যান চলাচল বন্ধে তদারকি বাড়ানো হবে বলে জানান তিনি। সম্পাদনা : ওমর ফারুক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত