প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বর্তমান দরে ধান বিক্রি করে লোকসানে কৃষকরা

ইনডিপেনডেন্ট টিভি : নওগাঁর বাজারে উঠতে শুরু করেছে আমন মৌসুমের ধান। বাজারে ধানের দাম না পেয়ে হতাশ কৃষক। এতে লোকসান গুনতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন অনেকে। সপ্তাহ খানেক আগে সরবাহ বাড়তে শুরু করার পরই দাম কমে যায়। প্রকার ভেদে মন প্রতি ধানের দাম কমেছে একশ থেকে দেড়শ টাকা। এখন মোটা জাতের ধান বিক্রি হচ্ছে প্রতিমন ৬০০ থেকে ৬৩০ টাকায়। আর সরু জাতের ধানের মন বিক্রি হচ্ছে বারোশ’ থেকে চৌদ্দশ’ টাকায়।

চাষিরা বলেন, বর্তমান দরে ধান বিক্রি করে লাভের চিন্তা করা যায় না। তাছাড়া উৎপাদন খরচ তোলাও কঠিন হয়ে যায়। পোকার আক্রমণের কারণে যারা ফলন কম পেয়েছেন তারা বেশি অসুবিধায় পড়েছেন। দশ থেকে বারো হাজার টাকায় প্রতি বিঘায় খরচ করলেও সেখানে পাচ্ছি মাত্র তিন থেকে চার হাজার টাকা।

এদিকে, দিনাজপুরেও চলছে পুরোদমে ধান কাটা-মাড়াই। বাজারে সরবাহ বাড়লেও চাতাল মালিকেরা এখনও ধান কেনা শুরু করেননি। মৌসুমি ব্যবসায়ী ও ফড়িয়াদের কাছে কম বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন চাষিরা।
দিনাজপুর জেলা চালকল মালিক গ্রুপ সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, হঠাৎ করেই এই ধানের দাম বাড়তি বা কম আমাদের জন্য কষ্টকর হয়ে যায়। আমরা চাইবো কৃষক ভালো দাম পাবে এবং সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হোক।

দিনাজপুর জেলা খাদ্য বিভাগ মো.আশরাফুজ্জামান বলেন, সরকারিভাবে ধান সংগ্রহ শুরু হলে সঠিক দাম পাবে চাষি। লটারির মাধ্যমে ধান কেনা হলেও সার্বিকভাবে এর প্রভাব পড়বে বাজারে। আমরা আশা করছি কৃষক এবার ন্যায্যমূল্য পাবে।

বৃষ্টি কম হওয়ায় এবার ধানে সেচ বেশি দিতে হয়েছে যশোরের চাষিদের। পাশাপাশি সার, কীটনাশক, শ্রমিকের মজুরি বেশি হওয়ায় বেড়েছে উৎপাদনের খরচ। কিন্তু এখন বাজার দেখে হতাশ চাষিরা। জান্নাত জুঁই সম্পাদনা : রাশিদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত