প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লেবার দলের নির্বাচনী ইশতেহার প্রসঙ্গে

 

মাসুদ রানা : লেবার পার্টি তার নির্বাচনী ইশতেহারে যে সমাজতান্ত্রিক কর্মসূচি ঘোষণা করেছে, তা দলটি সম্পর্কে গত ১৪ নভেম্বরে আমার লেখা মতামত তথা প্রত্যাশার সঙ্গে বেশ মিলেছে। লেবার তার ইশতেহারে কী বলেছে, তা বলার আগে আমি পুনরাবৃত্তি করতে চাই আমার আমার ধারণাটি। ‘১২ ডিসেম্বরের নির্বাচন ঃ জয়ী হতে হলে লেবার পার্টিকে কী করতে হবে?’ শিরোনামে ১৪ নভেম্বরে লেখাটিতে আমি লিখেছিলাম ঃ ‘বর্তমান বিশ্ব-পরিস্থিতি এমনই যে, প্রতিটি জাতির মধ্যে নতুন করে জাতীয় আত্মসচেতনতার উন্মেষ ও বিকাশ ঘটছে। এটি হচ্ছে সম্ভাব্য তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পূর্বগামী মনোরাজনৈতিক ক্ষেত্র প্রস্তুতির অংশ।

সাধারণভাবে বিশ্বব্যাপী বামপন্থীরা জাতীয়তাবাদকে রূপতঃ পাপ মনে করার কারণে তাদের পক্ষে গণ-মানুষের জাতীয়তাবাদী চেতনাকে ধারণ করা কিংবা এ্যাড্রেস করা সম্ভব নয়। একইভাবে, ব্রিটিশ লেবার পার্টির বর্তমান নেতৃত্ব সমাজাতান্ত্রিক হওয়ার কারণে তাদের পক্ষে ইংলিশ জনগোষ্ঠীর জাতীয় অনুভূতির মর্ম উপলব্ধি করে তার প্রতি সঠিক ক্রিয়া করা সম্ভব হচ্ছে না। যদিও লেবার পার্টি ক্ষমতায় এলে তা শুধু ব্রিটিশ জনগণের জন্যই নয়, সারাবিশ্বের জন্য ইতিবাচক হবে, কিন্তু জাতীয় চেতনায় উত্থিত ইংলিশ জনগোষ্ঠীর মধ্যে তারা ইতিবাচক সাড়া জাগাতে পারছে না। ইংলিশ জনগোষ্ঠীর মধ্যে ইতিবাচক সাড়া জাগাতে হলে লেবার পার্টিকে ভূমি-কাঁপানো সমাজতান্ত্রিক কর্মসূচি ঘোষণা করতে হবে, যার ফলে জাতীয় চেতনাকে পেছনে ফেলে তীব্র শ্রেণি চেতনা জেগে ওঠে সাধারণ শ্রমজীবী নিবিত্ত মানুষের মধ্যে।

গত তিন-চার দশকে যেসব পরিষেবা ব্যক্তি-মালিকানায় বিক্রি করে দেয়া হয়েছে, লেবার পার্টিকে সেগুলোর পুনঃজাতীয়করণ করে জনগণের কাছে সেগুলো সম্ভব হলে বিনামূল্যে বা অল্পমূল্যে সুলভ করতে হবে। তাদের স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, বাসস্থান, বেতন-ভাতা, গণ-পরিবহন, বিনোদন, অবসর, তথ্য ও সংযোগাযোগ-সহ সকল ক্ষেত্রে কোর্পোরেইট মুনাফামুখিতার পরিবর্তে জনকল্যাণমুখিতা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। জনগণের আস্থা অর্জন করতে হলে লেবার পার্টিকে জাতীয় জীবনের পাশাপশি বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনাসহ ব্রিটেইনের ইতিবাচক বিশ্বভূমিকা স্পষ্ট করে তুলতে হবে। বিশেষত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জুনিয়র পার্টনার না হয়ে ব্রিটেইন কীভাবে তার অগ্রণী ও ইতিবাচক স্বতন্ত্র বিশ্বভূমিকা পালন করতে পারে, সেটি ব্রিটিশ জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। কাজগুলো কঠিন, কিন্তু অসম্ভব নয়। আর এটি শুধু ব্রিটিশ লেবার পার্টির বিজয়কেই সুনিশ্চিত করবে না, এতে বিশ্বের রাজনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব সৃষ্টি করবে।’ ২১/১১/২০১৯, ল-ন, ইংল্যা-। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত