প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নেতিবাচক প্রভাবে রোমান্সের সম্পর্ক টিকছে ১৭ মাস, বলছে জরিপ

রাশিদ রিয়াজ : ব্রিটেনে রোমান্সের গড় আয়ু এখন ১৭ মাস। ৫ বছর আগে এ আয়ু ছিল ২ বছর ৯ মাস। ওই জরিপের ৬ বছর আগে সম্পর্কের গড় আয়ু ছিল ১৫ বছর। আর এজন্যে দায়ী করা হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরকীয়া চর্চা ভীষণভাবে বৃদ্ধি পাওয়ার ওপর। এর আগে কখনো অন্যকোনো মাধ্যমকে পারস্পরিক সম্পর্ক বিনষ্ট করার জন্যে দোষারোপ করা হয়নি। তাই সামাজিক বিজ্ঞানীরা বলতে বাধ্য হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সম্পর্ক বিনষ্টের ক্ষেত্রে নীরব ঘাতক বলে অভিহিত করছে। দি সান

ফেসবুক, ¯œ্যাপচ্যাট, ইনস্টাগ্রাম এবং টুইটারকে এজন্যে প্রধানত দায়ী করা হচ্ছে। এসব মাধ্যমে এতবেশি ব্যবহারকারী ঝুঁকে পড়ছে যে তাদের রোমান্সের মেয়াদ খাটো হতে হতে ১৭ মাসে এসে ঠেকেছে। জরিপে সহ¯্রাধিক নারী-পুরুষ অবলীলায় স্বীকার করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা একে অপরের প্রতি সন্দেহ, বিরক্তিবোধ, বিবাদ, একে অপরের ফোনসেট তল্লাশির মত কাজে লিপ্ত হয়ে পারস্পরিক আস্থা ভেঙ্গে দিচ্ছে। দাম্পত্য সমস্যার সমাধান ধৈর্য ও বিশ্বাসের মধ্যে দিয়ে খোঁজার পরিবর্তে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তাৎক্ষণিকভাবে সম্পর্ককে ভেঙ্গে ফেলতে উদ্বুদ্ধ করছে। কাউন্সিলর সিমন বোস বলছেন কিভাবে সম্পর্কের ওপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সম্পর্কের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে তা প্রতিনিয়ত দেখতে পাচ্ছি।

ওল্ডস্টাইলডেটিং.সিও.ইউকে পরিচালিত এ জরিপে উত্তরদাতারা বলছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তাদের ওপর সম্পর্কের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি করে। সাতজন দম্পতির একজন দম্পতি বলছেন অন্যের সঙ্গে ঠাট্টা-মস্করার মত প্রেমের ভান করতে যেয়ে নিজেদের সম্পর্কে অবনতি ঘটে। এরপর পোস্ট, ছবি ইনস্টগ্রাম, স্ন্যাপচ্যাট বা ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিবাদ বাড়তেই থাকে। ২০ জন দম্পতির মধ্যে একজন বলছেন তাদের সম্পর্ক ভেঙ্গে গেছে একজন আরেকজনের ফোন বা সন্দেহবশত কোনো তথ্য যাচাই করতে যেয়ে। দশজনের মধ্যে একজনের মধ্যে সম্পর্ক ভেঙ্গেছে ডেটিং সাইটের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করায়। সাতজনের মধ্যে একজন বলছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের প্রেম প্রকাশ হয়ে পড়ায় সম্পর্ক ভেস্তে গেছে।ওল্ডস্টাইলের প্রতিষ্ঠাতা ড্যানি স্মিথ বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জীবনেরই অংশ কিন্তু তা আমাদের রোমান্টিক সম্পর্কে গভীর নেতিবাচক প্রভাব কিংবা চিড় ধরাতে সক্ষম তাতে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।

এদিকে ব্রিটেনে বছর পাঁচেক আগে ভাউচারকোডসপ্রো.সিও.ইউকে একই ধরনের জরিপে সম্পর্ক ৩ বছরের কম বলে একই ধরনের কারণ উল্লেখ করেছিল। জরিপে ৭৯ ভাগ সম্পর্ক ভাঙ্গার জন্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে দায়ী করেছিল।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত