প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গোলাপি ক্রিকেট রোমান্স! মমতা-হাসিনার ‘ইডেন বেলে’ আজ নয়া ইতিহাস

রাশিদ রিয়াজ : কোন দিক ছেড়ে আজ কোন দিকে তাকাবেন ইডেনে? এক দিকে ক্লাব হাউসে দাঁড়িয়ে ‘ইডেন বেল’ বাজাবেন দুই বাংলার দুই নেত্রী—মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শেখ হাসিনা। অন্য দিকে স্বপ্নের সব মুখ। তেন্ডুলকর, দ্রাবিড়, কুম্বলে, আজহারউদ্দিন থেকে গাভাসকর, কপিলদেব, বেঙ্গসরকর। আরএকটু পুরোনো আমলের ইঞ্জিনিয়ার, চাঁদু বোর্দে। কোন দিক ছেড়ে আজ কোন দিকে তাকাবেন ইডেনে?

এক দিকে ক্লাব হাউসে দাঁড়িয়ে ‘ইডেন বেল’ বাজাবেন দুই বাংলার দুই নেত্রী—মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও শেখ হাসিনা। অন্য দিকে স্বপ্নের সব মুখ। তেন্ডুলকর, দ্রাবিড়, কুম্বলে, আজহারউদ্দিন থেকে গাভাসকর, কপিলদেব, বেঙ্গসরকর। আরএকটু পুরোনো আমলের ইঞ্জিনিয়ার, চাঁদু বোর্দে।

আর এক পাশে অলিম্পিক সোনা জয়ী অভিনব বিন্দ্রার সঙ্গে থাকবেন পিভি সিন্ধু, মেরি কম, সানিয়া মির্জা, গোপীচন্দরা। কত ভক্ত এঁদের।ক্রিকেট, অলিম্পিক গেমস, রাজনীতি সব মিলেমিশে যাচ্ছে ইডেনে। ভরা গ্যালারির সামনে। এই মায়াবি পরিবেশের মাঝে আজ শুরু ভারতের মাঠে গোলাপি টেস্ট।

ইডেন টেস্টের রোমান্স ছাপিয়ে চর্চায় উঠছে অনেকদিন পর হাসিনার সঙ্গে মমতার সাক্ষাৎ। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী এ দিন মুর্শিদাবাদে সাংবাদিকদের বলেছেন, তাঁর সঙ্গে বৃহস্পতিবার সকালে হাসিনার সঙ্গে একবার কথা হয়েছে। ইডেনে দেখা হওয়ার পর তিনি আরও দু’বার হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকার করতে যাবেন হোটেলে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সূচিতেও রয়েছে মমতার সঙ্গে আলাদা সৌজন্য বৈঠকের কথা। মমতা বলেন, ‘আমাদের খুব কাছের মানুষ শেখ হাসিনা। এ পার বাংলার মানুষ তাঁকে খুব সম্মান করেন। বাংলাদেশের মানুষদেরও আমরা খুব ভালোবাসি। উনিও আমাদের খুব ভালোবাসেন। মোট তিনটি জায়গায় আমাদের দেখা হবে। সন্ধ্যা ছটার সময় তাজ বেঙ্গলে আলাদা করে বসব।’

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী আসছেন আজ সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাবেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সেখান থেকে হোটেল। তারপর সোজা ইডেন। সেখানে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মাঠে নেমে ক্রিকেটারদের সঙ্গে পরিচিত হবেন হাসিনা। তারপর দুই নেত্রী বাজাবেন ‘ইডেন বেল’। সঙ্গে থাকবেন ভারতের বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও বাংলাদেশের বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান।

ম্যাচের পর হাসিনা এবং মমতাকে নিয়ে মিনিট কুড়ির একটা অনুষ্ঠান হওয়ার কথা আছে। সেখান থেকেই বিমানবন্দরে চলে যাবেন হাসিনা। সেই সময়টায় মঞ্চ মাতাবেন রুনা লায়লা এবং জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার রাতের মহড়ায় তার অনেক ঝলকই দেখা গেল।

রাত সাড়ে দশটাতেও চলছিল মহড়া। রংবেরংয়ের ছাতা, সুদৃশ্য কাটআউটে অভিনব অনুষ্ঠানের ভাবনা। মাঠের মাঝখানে নিয়ে আসা হয়েছিল অর্ধচন্দ্রাকৃতি গোলাপি মঞ্চ। যেখানে হাসিনা এবং মমতাকে নিয়ে অনুষ্ঠান হবে। চেয়ার বসিয়ে তার একপ্রস্থ মহড়াও হয়ে গেল।

রাত তখন ন’টা। মায়াবি আলোয় ভেসে যাচ্ছিল ইডেন। মাঠ জুড়ে তখন ছড়িয়ে পড়ছে, ‘সাধের লাউ বানাইল মোরে বৈরাগি!’ কখনও বা, ‘বন্ধু তিনদিন তোর!’

ঠিক তখনই সিএবির দোতলার সুসজ্জিত ঘরে দারুণ একটা দৃশ্য। ‘সাধের লাউ’-এর অমর শিল্পী বাংলাদেশের রুনা লায়লা ব্যস্ত রিহার্সালে। পাশে বাংলার আর এক অন্যতম সেরা সুরকার-গায়ক জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। যিনি মুগ্ধ হয়ে বললেন, ‘রুনাদির মতো কিংবদন্তির সঙ্গে এক মঞ্চে দাঁড়িয়ে অনুষ্ঠান করব, তাও আবার ইডেনে। এটা ভাবতেই রোমাঞ্চিত হচ্ছি। দিদির জন্য আমার একটা স্পেশ্যাল গান থাকবে।’ যা শুনে হেসে রুনা লায়লা বললেন, ‘আমার গানটা সারপ্রাইজই থাক। মাঠে দেখবেন।’

এতবার কলকাতায় এসেছেন। ইডেনে এই প্রথম রুনা লায়লা। বললেন, ‘ক্রিকেটের তেমন ভক্ত নই। তবে সৌরভের বড় ভক্ত। ওর ডাকেই ছুটে আসা। তবে খেলা দেখেছি লর্ডসে বসে।’

কী দেখার থাকবে টেস্ট ম্যাচের বাইরে?

সাপার ব্রেকে ‘ফ্যাব ফাইভ’-কে নিয়ে টক শো। তবে জানা গেল, সেই টক শো-তে সৌরভ থাকতে চাইছেন না। সেটা হলে সচিন-দ্রাবিড়-লক্ষ্মণ ও কুম্বলেকে নিয়েই হবে মিনিট পনেরোর অনুষ্ঠান।

তারপর টি-ব্রেকে মিউজিক্যাল অনুষ্ঠানের সঙ্গে দু’দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক এবং ক্রিকেটারদের সঙ্গে অলিম্পিয়ানদের সংবর্ধনার পালা।

দুই বাংলার ক্রিকেটারদের তালিকায় কম দীর্ঘ নয়। বাংলাদেশ থেকে আসছেন পুরোনো অনেক মুখ। হাবিবুল বাশার, নইমুর রহমান, মাহামুদুল হাসান, আক্রম খান, মাহারব হোসেন, হাসিবুল হোসেনরা।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত