প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সংস্কারের পর ওসমানী মিলনায়তন খুলছে ৯ ডিসেম্বর, শেষ মুহুর্তের কাজ দেখলেন পূর্তমন্ত্রী

আসাদুজ্জামান সম্রাট: সংস্কারের পর নবরূপে সজ্জিত রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন খুলছে ৯ ডিসেম্বর (সোমবার)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এটি উদ্বোধন করবেন। বৃহস্পতিবার গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাইল করিম এর সংস্কার কাজ পরিদর্শন করে শেষ মুহুর্তের কিছু দিক নির্দেশনা দেন।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রুচিশীল ও আধুনিক স্থাপত্য নকশা অনুযায়ী সংস্কারের মাধ্যমে এ মিলনায়তনে পরিশীলিত ও মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে।মুক্তিবাহিনীর সর্বাধিনায়ক এম এ জি ওসমানীর নামে নামকরণ করা প্রায় চার দশকের পুরনো এ মিলনায়তনটি সংস্কারের মাধ্যমে আধুনিকায়নের জন্য চলতি বছরের মার্চ মাসে কাজ শুরু করে গণপূর্ত অধিদফতর। ২০২০ সালের জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত মেয়াদের প্রায় সাত মাস আগে মিলনায়তনটির সংস্কার ও আধুনিকায়ন কাজ শেষ হচ্ছে। সংস্কারের পর এটি আন্তর্জাতিক মানে উন্নীতি হবে বলেও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে দাবি করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নব সাজে সজ্জিত ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন পরিদর্শন করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। এ সময় তার সাথে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার, অতিরিক্ত সচিব মো. ইয়াকুব আলী পাটওয়ারী, গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাহাদাত হোসেন, স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি আ স ম আমিনুর রহমান, সাবেক প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসির, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. মঈনুল ইসলামসহ গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও গণপূর্ত অধিদফতরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শনকালে মন্ত্রী সম্পূর্ণ মিলনায়তন ঘুরে দেখেন এবং এটি পরিপূর্ণভাবে ব্যবহার উপযোগী করে তোলার জন্য কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখে তাৎক্ষণিকভাবে সমাধানে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন।

৯ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনসহ বেগম রোকেয়া দিবস ও বেগম রোকেয়া পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলেও গণপূর্তে মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে আরও জানানো হয়, ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন আধুনিকায়নের জন্য সিঙ্গাপুর থেকে অ্যাকুয়েস্টিক ডিজাইন করে আনা হয়েছে। এতে প্রতিবন্ধীবান্ধব আসন ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুবিধার্থে হুইল চেয়ার বহনযোগ্য লিফট স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া এখানে অত্যাধুনিক সাউন্ড সিস্টেমসহ যুগোপযোগী অডিও আউটপুটের ব্যবস্থা রয়েছে। করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন লাইটিংয়ের ব্যবস্থা। মিলনায়তনে একটি ভিভিআইপি অফিস ও দুটি কনফারেন্স রুম নির্মাণসহ নিরাপত্তা সিসিটিভি, নেটওয়ার্কিং ওয়াইফাই ও এলইডি স্ক্রিন স্থাপন করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত