প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভেজাল ওষুধের সঙ্গে জড়িতদের মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত: হাইকোর্ট

এস এম নূর মোহাম্মদ : ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি করে বা এর সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের যাবজ্জীবন বা মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের পর শুনানিতে আদালত এ মন্তব্য করেন। আদালত বলেন, কমিশন নিয়ে প্রেসক্রিপশনে ওষুধ লেখার কারনে ডাক্তারি পেশা নষ্ট হচ্ছে। ভেজাল ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধের ক্ষেত্রে ফার্মেসীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সাজা পর্যাপ্ত নয়। একই সঙ্গে ফার্মেসিতে একাধিকবার মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ পাওয়া গেলে নিয়মিত মামলা করতেও বলেছেন আদালত।

আদালত আরো বলেছেন, ওষুধ প্রশাসনসহ সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।যাতে বাংলাদেশের বাজারে মেয়াদোত্তীর্ণ ও ভেজাল ওষুধ বিক্রির সুযোগ সৃষ্টি না হয়। আর ওষুধ শিল্প সমিতিকে ইংরেজির পাশাপাশি যেন বাংলায় মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ ও মূল্য লেখা থাকে সেটা বিবেচনা করতে বলা হয়েছে। এছাড়া ভেজাল ওষুধ প্রতিরোধের কার্যক্রম সম্পর্কে ১২ ডিসেম্বররের মধ্যে ভোক্তা অধিকারকে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন হাইকোর্ট।

এর আগে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের বেঞ্চে এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, গত দুই মাসে ৩৪ কোটি ৭ লাখ ৬৯ হাজার ১৪৩ টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হয়েছে। একই সময়ে মেয়াদোত্তীর্ণ ও নকল ভেজাল ওষুধ সংরক্ষণের দায়ে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১ কোটি ৭৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯০০টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এই সময়ে ১৩ হাজার ৫৯৩টি ফার্মেসী পরিদর্শন করে মোবাইল কোর্টে ৫৭২টি মামলা করা হয়। এছাড়া মেয়াদোত্তীর্ণ ও নকল, ভেজাল ওষুধ সংরক্ষণের দায়ে ২টি ফার্মেসী সিলগালা করা হয়েছে বলে জানানো হয় প্রতিবেদনে।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার বলেন, কেউ এ ধরণের মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সংরক্ষণ ও বিক্রি করবেন না। ভেজাল ওষুধ বিক্রির চেষ্টা করবেন না। প্রয়োজনে সরকার আদালতের নির্দেশ মোতাবেক আইনগত দায়িত্ব পালন করবে।

বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, অভিযানের সঙ্গে আমরা একমত। নকল ওষুধ যেন বাজারে না থাকে এটা আমরাও চাই।আমরা ফ্যাক্টরি মালিকদের সঙ্গে বসবো।শতভাগ যেন বাংলায় হয়। আমাদের বিদেশেও ওষুধ পাঠাতে হয়। তাই সবকিছু ঠিক করে একটি প্রতিবেদন দেবো। সম্পাদনা: সারোয়ার জাহান

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত