প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষক হলেন সমাজের রেফারি

 

কামরুল হাসান মামুন : একটি নির্দিষ্ট দল, একটি নির্দিষ্ট মত, একটি নির্দিষ্ট পথের অনুসারী হওয়া মানে মাথার উপর একটি ঢাকনা দিয়ে দেওয়া। এর অর্থ হলো এর বাইরে দেখা যাবে না। এর অর্থ হলো এর বিরুদ্ধে বলা যাবে না। এর অর্থ হলো একজন মানুষকে এতো বড় ভাবা যে এটা ধরে নিয়ে জীবন পরিচালিত করতে হবে যে এর চেয়ে আর বড় হওয়া যাবে না। অথচ চিন্তা বড়র কোনো সীমা হয় না। অথচ আমাদের সমাজটা এখন এমনই এক ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে যেখানে কেবলই অনুগত হতে দীক্ষা দেয়, কেবলই সহমত হতে বাধ্য করা হয়, কেবলই সীমার মধ্যে থাকতে শিক্ষা দেওয়া হয়। এর অর্থ হলো নতুন জ্ঞান সৃষ্টি হবে না। এর অর্থ হলো ইতিমধ্যে যতো বড় মানুষ হয়েছে তার চেয়ে আর বড় হওয়া যাবে না। তাহলে দেশ আগাবে কী করে?
আমি এমনি এক মানুষ যেকোনো কিছুকেই taken for granted মনে করি না।

এমনকি নিজের গবেষণা করতে গিয়েও না। আমি নিয়ত প্রশ্ন করি, যুক্তি খুঁজি, উত্তর খুঁজি। যেমন পেকোলাশন তত্ত্বে আজ ষাট বছর যাবৎ ধরে নিয়েছিলো গড় ক্লাস্টার সাইজই হলো susceptibility! আমি ধরে নেইনি বলেই নতুন সংজ্ঞা দিতে পেরেছি এবং ফাইট করে এস্টাব্লিশ করেছি। যেমন পেকোলাশন তত্ত্বে আজ ষাট বছর যাবৎ সাইট পার্কোলেশনের একটি বিশেষ সংজ্ঞা ছিলো। মেনে নিইনি বলেই নতুন সংজ্ঞা দিতে পেরেছি এবং ফাইট করে এস্টাব্লিশ করেছি। পার্কোলেশন যদি সেকেন্ড অর্ডার phase transition–এর মডেল হয় নিশ্চয়ই এর একটি এনট্রপি থাকতে হবে যা থার্মাল এনট্রপির মতোই আচরণ করবে। এটি আজ ষাট বছর জবটি বষঁংরাব ছিলো। গত ১০ বছর যাবৎ দুয়েকজন চেষ্টা করেছে। সেই দুইএকটা যে ভুল সেটা প্রমাণ করে নিজের একটি সংজ্ঞা প্রপোজ করি এবং যুদ্ধ করে এস্টাব্লিশ করি। এইরকম আরও অনেক গল্প আছে।

আমি ভেবে পাই না শিক্ষকরা কীভাবে কোনো একটি নির্দিষ্ট দলের দলান্ধ হয়। শিক্ষক হবেন খোলা মনের মানুষ। কারণ আমাদের ছাত্ররা নানা দল করে, নানা মত ও ধর্মের থাকতে পারে। আমরা তো রেফারির মতো। সব সময় সাদাকে সাদা হিসেবেই দেখে ছাত্রছাত্রী তথা সমাজকে সঠিক পথ দেখাবো। অন্ধ হয়ে অন্যকে পথ দেখাব কীভাবে? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত