প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বুয়েটে কাটছেনা অচলবস্থা
শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে ২-৩ সপ্তাহ সময় চাইলেন ভিসি

আসিফ কাজল : আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবিতে প্রায় দেড় মাস বন্ধ রয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়। একাডেমিক কার্যক্রমসহ অনির্দিষ্ট কালের জন্য স্থগিত রয়েছে সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবি সংকুচিত হয়ে ৩ দফায় নেমে এলেও সহসাই কাটছেনা বুয়েটের অচলাবস্থা। প্রশাসনের দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ না থাকায় এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা।

সোমবার দুপুর দেড়টায় উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলামের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আঁধাঘণ্টাব্যাপী এ আলোচনায় শিক্ষার্থীদের দাবি বাস্তবায়নে ২-৩ সপ্তাহ সময় চেয়েছেন ভিসি সাইফুল ইসলাম। এসময় উপাচার্য বলেন, এখন অভিযুক্তদের শাস্তি দিলে আইনের কাছে এ শাস্তি একদিনও টিকবে না। এজন্য সময় লাগছে। এ দাবিগুলো বাস্তবায়নে এখন পর্যন্ত ২৯টা মিটিং সম্পন্ন হয়েছে বলেও জানান তিনি। সর্বশেষ ২-৩ সপ্তাহের মধ্যে সংকট সমাধান হবে কিনা এ প্রসঙ্গে ভিসি নিজেই সংশয় প্রকাশ করেন। আলোচনা অনুষ্ঠানে বিভিন্ন অনুষদের ডিন, একাধিক হলের প্রভোস্ট ও ছাত্র কল্যাণ পরিচালক উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্যের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের আলোচনা প্রসঙ্গে বুয়েট চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী তাসমিয়া তিথি বলেন, এ আলোচনার অন্তসার শূন্য। ভিসি মহোদয় শিক্ষার্থীদের দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ দেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি আবরার ফাহাদ হত্যায় অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার করে দুটি দাবির জন্য সময় চাইতে পারতেন। দীর্ঘদিন ধরে যে একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে সে সময় আরও দীর্ঘ করলেন তিনি বলে মন্তব্য করেন।

এরপরেই বেলা দুটায় সংবাদ সম্মেলন করেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, ছাত্রলীগ সভাপতির কক্ষে তালা দিতে বুয়েট প্রশাসনের মাত্র একদিন সময় লেগেছে। একদিনের মধ্যে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপরেও তিন দফা দাবি বাস্তবায়নে কালক্ষেপন করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পুলিশের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করে তারা বলেন, পূর্বঘোষিত সময়ের মধ্যে পুলিশ অভিযোগপত্র দাখিল করেছে। মামলার এজাহারের বাইরেও তারা জড়িতদের চার্জশিটে সংযুক্ত করেছে। অছচ শুধুমাত্র বুয়েট প্রশাসনের সদিচ্ছার কারণে হাজারো শিক্ষার্থীর জীবন ঝুলে রয়েছে। তাদের তিনদফা দাবিসমূহ হলো- অভিযোগপত্রে যাদের নাম এসেছে তাদের স্থায়ী বহিষ্কার, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া বিভিন্ন হলে র‌্যাগিং এর তদন্ত ও বিচার এবং সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতির বিষয়ে বিধিমালা প্রণয়ন। সংবাদ সম্মেলনে আবরার হত্যা মামলার দ্রুত অগ্রগতির জন্য প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান শিক্ষার্থীরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত