প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগে বাদ যাচ্ছেন সিনিয়ররা, আসছে নতুন নেতৃত্ব

সমীরণ রায়: আগামী ৩০ নভেম্বর ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন। ইতোমধ্যে সম্মেলনকে ঘিরে সংগঠনে দেখা দিয়েছে উৎসাহ-উদ্দীপনা। তবে বর্তমান নেতৃত্বের অনেক সিনিয়র নেতার বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, দখলবাণিজ্য, ক্যাসিনো ব্যবসা ও টাকার বিনিময়ে পদ বিক্রিসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। এতে করে সিনিয়র অনেক নেতাই বাদ যেতে পারেন। ফলে নগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগে আসছে নতুন নেতৃত্ব।

জানা গেছে, মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিতর্কিত নেতাদের বিরুদ্ধে তালিকা প্রস্তুত করেছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী। দলের প্রবীণ নেতা ও সরকারি-বেসরকারি গোয়েন্দা সংস্থার সহযেগিতায় এই তালিকা প্রস্তুত করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ফলে দল ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে চলমান শুদ্ধি অভিযানের অংশ হিসাবে নগর উত্তর-দক্ষিণেও বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে নতুন নেতৃত্ব এনে চমক দেবেন শেখ হাসিনা।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, বিতর্কিত, অনুপ্রবেশকারী ও হাইব্রীড নেতাদের ক্ষেত্রে কঠোর সতর্কতা অবলম্বন করা হবে। যাতে কোনোভাবেই তাদের হাতে দলের নেতৃত্ব না দেয়া হয়। অনুপ্রবেশকারী ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রীও কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন। আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাওয়ার জায়গা থেকে আগামীতে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সাজাতে চাই।

গত ২০১৬ সালের ১০ এপ্রিল ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। ওই সম্মেলনে উত্তরের সভাপতি নির্বাচতি হন একেএম রহমতুল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান। আর দক্ষিণে সভাপতি হন আবুল হাসনাত ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন শাহে আলম মুরাদ। তবে আগামী সম্মেলনে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগে ব্যাপক পরিবর্তনের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। মহানগর এই দু’টির বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ-পদবীতে পরিবর্তন আসতে পারে বলেও মনে করছেন অনেকে।

এদিকে ঢাকা উত্তরের সভাপতি পদে আসতে পারেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান। উত্তরের সাধারণ সম্পাদক পদে আসতে পারেন বর্তমান কমিটির অর্থ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ওয়াকিল উদ্দিন ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আসতে পারেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী এ্যাড. কামরুল ইসলাম, বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি আবুল বাশার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলিপ রায়। সাধারণ সম্পাদক পদে আসতে পারেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, দক্ষিণের প্রচার সম্পাদক আখতার হোসেন, সাবেক মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আজিজের ছেলে কাউন্সিলর ওমর বিন আব্দুল আজিজ তানিম। এছাড়াও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আসতে পারেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এফ এম শরীফুল ইসলাম।

সর্বাধিক পঠিত