প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দেনার দায়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে রিলায়েন্স কমিউনিকেশন থেকে পদত্যাগ করলেন অনিল আম্বানি

রাশিদ রিয়াজ : বিপুল ব্যবসায়িক ক্ষতির জেরে দেউলিয়া অবস্থা রিলায়েন্স কমিউনিকেশনে। ২০১৯ সালের জুলাই-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে সংস্থার মোট লোকসানের পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার ১৪২ কোটি টাকা। ঋণের ভারে জর্জরিতর রিলায়েন্স কমিউনিকেশন-এর ডিরেক্টর পদ থেকে ইস্তফা দিলেন অনিল আম্বানি। ২০১৭ সালের মার্চে প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক ঋণের পরিমাণ ছিল ৭০০ কোটি মার্কিন ডলার। অনিল আম্বানির ছাড়াও ছায়া ভিরানি, রায়না কারানি, মঞ্জরি ক্যাকার এবং সুরেশ রাঙ্গাচার রিলায়েন্স’র ডিরেক্টর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। এইসময়

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘এর আগেই সংস্থার ডিরেক্টর এবং মুখ্য আর্থিক কর্তার পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন মণিকান্থন ভি। ইস্তফাপত্রগুলি অনুমোদনের জন্য ঋণদাতাদের কমিটির কাছে পেশ করা হবে।’ বিপুল ব্যবসায়িক ক্ষতির জেরে দেউলিয়া অবস্থা রিলায়েন্সের। ভারতের টেলিকম বাজারে রিলায়েন্স জিও-র প্রবেশের পরে তীব্র প্রতিযোগিতার জেরে প্রবল মার খেতে শুরু করে রিলায়েন্সএর ব্যবসা। তীব্র লোকসান এবং গলা পর্যন্ত ঋণের জোড়া ধাক্কায় এক সময় নিজেদের ওয়ারলেস ব্যবসা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে অনিল আম্বানীর মালিকানাধীন সংস্থাটি। ২০১৭ সালের মার্চে শেষবার নিজেদের ঋণ সংক্রান্ত তথ্য জনসমক্ষে এনেছিল তারা। সে সময় প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক ঋণের পরিমাণ ছিল ৭০০ কোটি মার্কিন ডলার। এ ছাড়া ভেন্ডাররা তাদের থেকে বড় অংকের অর্থ পায়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিকে দেউলিয়া ঘোষণার প্রক্রিয়া চলছে।

সর্বাধিক পঠিত