প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পালিয়ে বিয়ে, বরের বাবা-ভাইকে নির্যাতন

চট্টগ্রাম প্রতিদিন : সত্যিকারের প্রেম নাকি জাতকুল মানে না। তাই মুসলিম ছেলে পালিয়ে বিয়ে করলো হিন্দু মেয়েকে। এ দোষে ছেলেকে না পেয়ে ছেলের বৃদ্ধ পিতা ও ভাইকে ধরে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে নগরীর ডবলমুরিং থানা পুলিশের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বোয়ালখালী উপজেলার পশ্চিম শাকপুরা এলাকার বাদশা ডাক্তারের বাড়ির আবদুল শুক্কুরের ছেলে শাহাদাত হোসেনের (২৮) সাথে একই এলাকার স্বপন মহাজনের মেয়ে মেঘলা মহাজনের (২২) প্রেমের সম্পর্ক ছিল। একপর্যায়ে তারা পালিয়ে যায়। মেঘলা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে নাম পাল্টে সুনেহেরা ইসলাম (মেঘলা) নাম ধারণ করে। গত ১৩ নভেম্বর কোর্টে হাজির হয়ে প্রেমিক শাহাদাত হোসেনের সাথে বিয়ে সম্পন্ন করে।

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) শেষ রাতের দিকে পুলিশ শাহাদাৎ হোসেনের বোয়ালখালীর গ্রামের বাড়ি থেকে তার অসুস্থ বাবা আবদুর শুক্কুর ও ছোট ভাই জয়নাল আবেদীন জামালকে তুলে নিয়ে যায়। পরদিন শাহাদাতের পরিবার বোয়ালখালী থানায় গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানতে পারে, বোয়ালখালী পুলিশ এ ব্যাপারে কিছুই জানে না। অনেক খোঁজাখুজির পর জানা যায়, মেঘলার নিকটাত্মীয় এক পুলিশ কর্মকর্তার প্রভাবে নগরীর ডবলমুরিং থানা পুলিশ বোয়ালখালী থানাকে না জানিয়েই তাদের নিয়ে গিয়ে শারীরিক নির্যাতন করে। ফলে আবদুর শুক্কুর খুবই অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে অভিযোগ পরিবারের। এ ঘটনায় হতবাক এলাকাবাসীর মন্তব্য- পুলিশতো আর প্রেম বোঝে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বোয়ালখালী থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ পিপিএম বলেন, কারা তাদের তুলে নিয়ে গেছে বা কি জন্য নিয়ে গেছে- তার কিছুই আমরা জানি না।

তবে ওসি ডবলমুরিং সুদীপ কুমার দাশ বোয়ালখালী থেকে দু’জনকে আটক করার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্বপন মহাজন নামের একজনের সুনির্দিষ্ট অপহরণ মামলায় তাদের আটক করে কোর্টে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত