প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘কাল স্কুলে মজা হবে’ এমন ইনস্টাগ্রাম বার্তার পর জন্মদিনে সহপাঠীদের ওপর গুলি চালায় নাথানিয়েল

রাশিদ রিয়াজ : সহপাঠীদের ওপর গুলি চালতে ষোলতম জন্মদিনের দিনটিকেই বেছে নেয় ক্যালিফোর্নিয়ার সান্টা ক্লারিটার সগাস হাইস্কুলের ছাত্র নাথানিয়েল বারহো। ঘটনার কিছুক্ষণ আগে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দেয়া হয়, ‘সগাস, হ্যাভ ফান এট স্কুল টুমারো’। এফবিআই খতিয়ে দেখছে নাথানিয়েলের ইনস্টাগ্রাম এ্যাকাউন্ট কেউ হ্যাক করেছিল কি না এবং ঠিক কোন সময় পোস্টটি দেয়া হয়েছিল। পোস্টটি মুছে ফেলে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ। ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষ ডেইলি মেইলকে বলছে যে ইনস্টাগ্রাম এ্যাকাউন্টে নাথানিয়েলের নামে বার্তা দেয়া হয়েছিল তা তার ছিল না। ইনস্টাগ্রামের নীতি ভঙ্গের কারণে তা বাতিল করে দেয়া হয়েছে। কিন্তু পুলিশ বলছে নাথানিয়েল ওই পোস্ট দিয়ে থাকতে পারে বা কেউ হয়ত তার এ্যাকাউন্ট হ্যাক করে এ বার্তা দিয়েছে।
এফবিআই বলছে নাথানিয়েল বারহো কোনো মতাদর্শের অনুসারী হয়ে এ গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মনে হয় না। তারপরও তদন্ত চলছে। তার বিরুদ্ধে স্কুলে অস্ত্র আনার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলে নাথানিয়েল তার অন্তত ৫ সহপাঠীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ব্যাকপ্যাকে করে বন্দুকটি সে এনেছিল। ২ জন ছাত্র মারা যাওয়ার পর নাথানিয়েল নিজেও আত্মহত্যার জন্যে নিজের মাথা লক্ষ্য করে শেষ গুলিটি চালানোর পর গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার মা মামি মাতাসুরা জানান, এই মূহুর্তে ছেলের জন্যে তিনি প্রার্থনা করছেন। তবে জন্মদিনের দিনই নাথানিয়েল কেনো স্কুলে গুলিবর্ষণের জন্যে বেছে নিয়েছিল সে সম্পর্কে কিছু বলতে পারেননি তিনি।

বারহোর বাবা মার্ক বারহো ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। প্রকৌশলী হলেও মার্ক বারহো মাছ ও বন্যপ্রাণি শিকার করতে পছন্দ করতেন। তার বন্দুক ছিল এবং ঘরেই তিনি বুলেট বানাতেন। স্ত্রীর সঙ্গে ঘাপলার কারণে ২০১৫ সালে মার্ক বারহোকে পুলিশ গ্রেফতার করার পর যথেষ্ট প্রমাণ না পাওয়ায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। এর পরের বছরই বারহো মা তার স্বামীর সঙ্গে ডিভোর্সের আবেদন জানিয়ে নাথানিয়েলকে নিজের কাছে রাখার আবেদন জানান আদালতে। পুলিশ বারহোর মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

এদিকে নাথানিয়েলের ছেলেবেলার এক বন্ধু জানান, মার্ক বারহো প্রচুর মদ খেতেন এবং বাবার সঙ্গে মায়ের বনিবনা না হওয়ায়, তাদের পরিবার ভেঙ্গে যাওয়া ও মার্কের মৃত্যুর পর হয়ত সে গুলিবর্ষণ ও আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেল। নাথানিয়েলের প্রতিবেশিরা বলছে মার্কের অস্ত্রের প্রতি টান ছিল কিন্তু তার ছেলেকে তারা কখনো অস্ত্র ব্যবহার করতে দেখেনি। আরেক প্রতিবেশি জারেদ এ্যাক্সেন বলেন, বাবার সঙ্গে নাথানিয়েলকে তিনি শিকারে যেতে দেখেছেন। জারেদ দাবি করেন শিকারি বাবার সঙ্গে শৈশব কাটিয়ে ওঠায় তার পক্ষে স্কুলে গুলিবর্ষণের মত ঘটনা ঘটানো স্বাভাবিক। কিন্তু নাথানিয়েলের শিক্ষক জো ফিজপ্যাট্রিক বলেন, ক্লাসে নাথানিয়েল ছিল খুবই শান্ত প্রকৃতির এক ছেলে। আরেক জুনিয়র ছাত্র ব্রুক রিসলে জানান, নাথানিয়েলের গার্ল ফ্রেন্ড ছিল এবং বয়স্কাউটের একজন সক্রিয় সদস্য ছিল সে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত