প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হলি আর্টিজান মামলার চার্জশিট দুর্বলতার করণে আইনের ফাঁক দিয়ে বেরিয়ে যেতে পারে অপরাধীরা

হ্যাপি আক্তার : ২০১৬ সালের পয়লা জুলাই। গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ভয়াবহ জঙ্গি হামলা। যাতে নিহত হন দেশি-বিদেশি ২১ জন। পরদিন ভোরে কমান্ডো অভিযানে নিহত হয় পাঁচ হামলাকারী। যুক্তিতর্কে আসামিদের অপরাধ প্রমাণ করতে পেরেছেনরাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী । চ্যানেল ২৪

তবে, বিশ্লেষকরা বলছেন, এ মামলার চার্জশিটই দুর্বল। তাই আইনের ফাঁক গলে বেরিয়ে যেতে পারে আসল অপরাধীরা। জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আরও আধুনিক হওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন বিশেষজ্ঞেরা।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলা তদন্তের ভার পড়ে, কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের ওপর। সাঁড়াশি অভিযানে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। হোলি আর্টিজান হামলার প্রধান পরিকল্পনাকারী তামীম চৌধুরীসহ, বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে নিহত হয় ৮জন। এছাড়া, পুলিশ ও র‍্যাবের অভিযানে বিভিন্ন সময় ধরা পড়ে বেশ কয়েকজন।

ঘটনার দুই বছর পর আদালতে মামলার চার্জশিট দেয় কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। যেখানে আটজনকে আসামি করা হয়। সাক্ষী ২১১ জন, যাদের প্রায় সবার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। আর এই ঘটনায় আদালতে উপস্থাপন করা হয় ৭৫টি আলামত।

আসামিপক্ষের আইনজীবী বলছেন, সাক্ষীদের কেউই আসামিদের ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে পারেননি। তাছাড়া, এ মামলায় যাদের আসামি করা হয়েছে, চার্জশিটেও তাদের জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি রাষ্ট্রপক্ষ।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলছেন, মামলাটি সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে আছে। যে কোনো দিন রায়ের তারিখ জানানো হবে।

গুরুত্বপূর্ণ এ মামলার চার্জশিট দুর্বল বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিভাগের অধ্যাপক জিয়া রহমান। তিনি বলেন, এ ধরনের দুর্বল চার্জশিটের কারণে আইনের ফাঁক দিয়ে বেরিয়ে যেতে পারে প্রকৃত অপরাধীরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত