প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খাসোগজির দুই সহকর্মীকে জেনেভা থেকে অপহরণ করেছিলো সৌদি সরকার

ইয়াসিন আরাফাত : সৌদি মানবাধিকার কর্মী ও আইনজীবী হাসান আল-ওমারিকে ২০১৩ সালের অক্টোবরে অপহরণ করেছিলো সৌদি কর্তৃপক্ষ। আর চলতি বছরের মার্চে হাসান আল-কানানী নামের আরেক মানবাধীকার কর্মীকেও অপহরণের অভিযোগ ওঠে।  তাদের বিরুদ্ধে। তারা দুজনই জেনেভার একটি বন্দীশালায় আটক মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা কয়েদিদের নিয়ে কাজ করছিলেন। দি নিউ আরব

সৌদি পরিবারের সমালোচক ও সাংবাদিক জামাল খাশোগজির হত্যার প্রথম বার্ষিকীতে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এমনটিই জানিয়েছেন সেই কয়েদিরা। সেখানে তারা বলেছেন, সৌদি আরবের বিরুদ্ধে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করার হুঁশিয়ারি দিয়ে বেশ কয়েকটি হুমকিও দেয়া হয়েছিলো সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে। কিন্তু তারা তাদের কর্যক্রম বন্ধ না করায় তাদেরকে অপহরণ করা হয়।

আল-ওমারি ইয়েমেনের গৃহযুদ্ধে সৌদি আরবের অংশগ্রহণের সমালোচনা করেছিলেন এবং সৌদি সরকারকে অবিলম্বে এই সংঘাত থেকে সরে আসার আহ্বানও জানিয়েছিলেন।

যদিও সৌদি কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত এই অপহরণের প্রতিবেদন সম্পর্কে কোনও মন্তব্য করেনি। ইস্তাম্বুলে কনস্যুলেটের ভিতরে খুন হওয়া সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগজির হত্যার পর থেকেই সৌদিতে কর্মরত মানবাধিকার কর্মীদের কড়া নজরদারীতে রেখেছে সৌদি প্রশাসন।

এর আগে, খাশোগজি হত্যাকাণ্ড এবং মহিলা কর্মীদের উপর নিষেধাজ্ঞার কারণে আন্তর্জাতিক মহলে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন ছিলো সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। সম্পাদনা : সালেহ্ বিপ্লব

 

 

 

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত