প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গা গণহত্যা দায়ে আর্জেন্টিনায় সুচির বিরুদ্ধে মামলা, মিয়ানমারের সেনা প্রধানের বিচার দাবি

আসিফুজ্জামান পৃথিল: মামলার আসামিপক্ষে এই মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী ছাড়াও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা রয়েছেন।রোহিঙ্গা সঙ্কটের পর এই প্রথম নোবেল বিজয়ী অং সান সুচির বিরুদ্ধে কোনও ধরণের আইনি কার্যক্রম শুরু হলো। এএফপি

বুধবার রোহিঙ্গা ও লাতিন আমেরিকার মানবাধিকার গোষ্ঠীর করা ওই মামলায় দেশটির সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইংসহ শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিচার দাবি করা হয়েছে।সুচিসহ দেশটির সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীর অস্তিত্বে হুমকি সৃষ্টি করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলায় বলা হয়েছে, বৈশ্বিক বিচার ব্যবস্থার প্রতি সম্মান রেখেই এই মামলা। কারণ বিশ্বের অধিকাংশ দেশের আইন অনুযায়ীই সুচি গং সর্বোচ্চ অপরাধ করেছেন।মামলার এজাহারে বলা হয়েছে মিয়ানমার সংঘঠিত কিছু অপরাধ, যেমন যুদ্ধাপরাধ এবং মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ, এতোই ভয়াবহ যে, এর আগে কোনও দেশ একসঙ্গে তা করার কথা ভাবেওনি।

মামলার অভিযোগে মিয়ানমারের গণহত্যায় জড়িত ব্যক্তিদের নিষেধাজ্ঞাসহ শাস্তি চাওয়া হয়েছে।অন্য কোথাও মামলা করার সুযোগ না থাকায় আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা করা হয়েছে।ইউনিভার্সাল জুরিডেকশান নীতিতে আর্জেন্টিনায় যে কোনও দেশের বিরুদ্ধে মামলা করার সুযোগ রয়েছে।এ বিষয়ে বার্মা রোহিঙ্গা অর্গানাইজেশন ইউকের প্রেসিডেন্ট তুন খিন এএফপিকে বলেন, ‘দশকের পর দশকজুড়ে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ রোহিঙ্গাদের নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে।হত্যার মতো কর্মযজ্ঞ চালিয়ে দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য করছে।’

এই মামলার আইনজীবী টমাস ওজিয়া আশা করছেন, তাদের মামলার ফলে আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হবে। তিনি এএফপিকে বলেন, ‘আসামীপক্ষ অপরাধ করেছে। এমন ঘৃণ্য অপরাধের দৃষ্টান্তমূলক বিচার হতেই হবে।এই অপরাধীরা গণহত্যায় মদদ দিয়েছে এবং তা লুকিয়ে রাখারও চেষ্টা করেছে। এই অপরাধ ক্ষমার অযোগ্য।’ সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত