প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তেজস-এর সাফল্যের পর ভারতে বেসরকারি খাতে যাচ্ছে ১৫০ ট্রেন

রাশিদ রিয়াজ : এই বিষয়ে পাকা সিদ্ধান্ত নিতে কিছু দিনের মধ্যেই বৈঠকে বসতে যাচ্ছে ভারতের নীতি আয়োগ সিইও অমিতাভ কান্তের নেতৃত্বাধীন বিশেষ প্যানেল। বেসরকারি সংস্থার হাতে যাত্রী পরিষেবার দায়িত্ব তুলে দেওয়ার জন্য টেন্ডার ডাকার খসড়াপত্র তৈরির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে ওই বৈঠকে। গত ৫ অক্টোবর থেকে ট্রেন চালিয়ে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত আইআরসিটিসি টিকিট বিক্রির মাধ্যমে আয় করেছে ৩.৭০ লাখ টাকা।
ট্রেন চালানোর বরাত পেতে বেসরকারি সংস্থাকে লিজ বাবদ অর্থ এবং রেলের পরিকাঠামো ব্যবহারের জন্য নির্দিষ্ট অর্থ জমা করতে হবে। বিমান পরিবহন সংস্থা, ভ্রমণ সংস্থা, বড় মাপের হোটেল সংস্থা অথবা পরিবহন সংস্থার হাতে ট্রেন চলাচলের দায়িত্ব দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে রেল মন্ত্রণালয়।

ভারতীয় রেলের সাম্প্রতিক বৈঠকে একাধিক বেসরকারি উড়ান সংস্থা ও হোটেল সংস্থা অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে রয়েছে ভিস্তারা, স্পাইস জেট, ইন্ডিগো এবং আর কে কেটারার্সের মতো নামী সংস্থা।

গত ৫ অক্টোবর থেকে ট্রেন চালিয়ে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত আইআরসিটিসি টিকিট বিক্রির মাধ্যমে আয় করেছে ৩.৭০ লাখ টাকা। জানা গিয়েছে, ট্রেনে টিকিট বিক্রির হার ৮০-৮৫%। প্রতিদিন ট্রেন চালানোর খরচ দাঁড়িয়েছে ১৪ লাখ টাকা এবং টিকিট বিক্রি বাবদ আয়ের পরিমাণ দিনপ্রতি ১৭.৫০ লাখ টাকা।

পরীক্ষামূলক ভাবে আইআরসিটিসি-কে দু’টি ট্রেন চালানোর দায়িত্ব দিয়েছিল ভারতের রেল মন্ত্রণালয়। এর একটি লখনউ-দিল্লি রুটে এবং অন্যটি অহমেদাবাদ-মুম্বাই রুটে চলার কথা ছিল। এর মধ্যে লখনউ-দিল্লি রুটে ট্রেন চালানো শুরু করলেও আহমেদাবাদ-মুম্বাই রুটে এখনও পর্যন্ত ট্রেন পরিচালনা শুরু করেনি আইআরসিটিসি। যাত্রীদের বেশ কিছু আকর্ষণীয় পরিষেবা দিচ্ছে ভারতীয় রেলের এই শাখা সংস্থা, যার মধ্যে রয়েছে বিনামূল্যে খাবার, বিনামূল্যে ২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত যাত্রীবিমা এবং নির্দিষ্ট সময়ে ট্রেন না চললে যাত্রীদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা।

টেন্ডারে নির্বাচিত হলে ট্রেন চালানোর বরাত পেতে বেসরকারি সংস্থাকে লিজ বাবদ অর্থ এবং রেলের পরিকাঠামো ব্যবহারের জন্য নির্দিষ্ট অর্থ জমা করতে হবে। এছাড়া পরিচালক সংস্থাকে কেটারিং ও ক্লিনিং পরিষেবার সঙ্গে যাত্রীদের বিছানাপত্রের ব্যবস্থাও করতে হবে। পরিবর্তে ডাইনামিক মোড-এ ট্রেনের ভাড়া নির্দিষ্ট করা, ট্রেনের টিকিট বিক্রি এবং ট্রেনের ভিতরে টিকিট পরীক্ষার ক্ষমতা দেওয়া হবে পরিচালক সংস্থাকে। কোনও অবস্থাতেই যাত্রীভাড়ায় কোনও রকম ছাড়ের সুবিধা থাকছে না এই ব্যবস্থায়।

সর্বাধিক পঠিত