প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংস্থার ব্যাপক প্রস্তুতি

নিউজ ডেস্ক: মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ নম্বর এবং চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। কক্সবাজারে ৪ নম্বর হুশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বুলবুলের প্রভাবে ৭ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা। শনিবার সকাল ৯টায় রাজধানীর আগারগাঁও থেকে আবহাওয়া অধিদপ্তর এতথ্য জানায়।

উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

তাই এ দুর্যোগ মোকাবেলায় চট্টগ্রামে জেলা প্রশাসন, সরকারি সেবা সংস্থা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনগুলো প্রস্তুতি নিয়েছে।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন বলেন, সম্ভাব্য দুর্যোগে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অধিদপ্তর থেকে বরাদ্দকৃত নগদ ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা, ৩৪৯ মেট্রিক টন জিআর চাল, ৬৮১ বান্ডেল ঢেউটিন, ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার এবং ৫০০ তাঁবু প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এছাড়া দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের ৪৭৯টি আশ্রয়কেন্দ্র ছাড়াও ২ হাজার ২৬৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ১ হাজার ২৫০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়কে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের নিজস্ব লোক ছাড়াও স্বেচ্ছাসেবক, গাড়ি ও যন্ত্রপাতি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্রে অংশ নেওয়া লোকজনের থাকা-খাওয়ায় যাতে সমস্যা না হয়, সে ব্যবস্থা নিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেনাবাহিনী, পুলিশ, নৌপুলিশ, কোস্টগার্ডসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজনে যাতে তারা মাঠে নামতে পারে সে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া যে কোনো জরুরি প্রয়োজনে জেলা প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণকক্ষে (ফোন নম্বর: ০৩১-৬১১৫৪৫, ০১৭০০-৭১৬৬৯১) যোগাযোগের অনুরোধ জানান জেলা প্রশাসক।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবেলায় জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় ২৮৪টি মেডিক্যাল টিম গঠন করেছে। প্রতি ইউনিয়নে ১টি, প্রতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫টি এবং নগরে ৯টি মেডিক্যাল টিম সার্বক্ষণিক মাঠে থাকবে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন জেলা-উপজেলার সব ডাক্তার, নার্স এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত জরুরি ওষুধ, পানি বিশুদ্ধকরণ বড়ি, ওরস্যালাইন, জরুরি ওষুধ মজুত রাখা হয়েছে। সিভিল সার্জন কার্যালয়ে জেলা মেডিক্যাল কন্ট্রোল রুম (ফোন নম্বর: ০৩১-৬৩৪৮৪৩) চালু করা হয়েছে।

নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে মাইকিং চলছে
চট্টগ্রামের সমুদ্র উপকূলীয় এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে শুরু হয়েছে মাইকিং। রাতের ভেতরে উপকূলীয় এলাকায় থাকা মানুষকে সরাতে নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। এছাড়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) ৪ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার, ৭টি মেডিক্যাল টিম গঠন এবং ৪টি অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রেখেছে।

প্রস্তুত রয়েছে রেড ক্রিসেন্টের ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবেলায় চট্টগ্রামের ৪২০টি স্কুল-কলেজ শাখার প্রায় ১০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক কর্মীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশনা দিয়েছে রেড ক্রিসেন্ট। এছাড়াও নগরের আন্দরকিল্লায় রেড ক্রিসেন্ট কার্যালয়ে একটি নিয়ন্ত্রণকক্ষ চালু করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজনে ০১৬৭৫-৬২৮৮৪২, ০১৭৭৪-৭৪২৮৯২ নম্বরে যোগাযোগ করতে রেড ক্রিসেন্টের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

নগরীর দামপাড়ায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) সদর দপ্তরে জরুরি নিয়ন্ত্রণকক্ষ চালু করা হয়েছে। যে কোনো প্রয়োজনে ০১৬৭৬-১২৩৪৫৬, ০১৬৭৯-১২৩৪৫৬, ০৩১-৬৩৯০২২, ০৩১-৬৩০৩৫২ নম্বরে যোগাযোগের জন্য সিএমপির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সভায় পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. কামাল হোসেনসহ বিভিন্ন দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত