প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অস্ট্রেলিয়ায় বিভিন্ন অঞ্চলে ভয়াবহ দাবানল, জরুরি অবস্থা জারি

সাইফুর রহমান : এই দাবানল এবং রেকর্ড সংখ্যক জরুরি অবস্থা নিউ সাউথওয়েলসকে হুমকির মুখে ফেলছে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয় কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার রাজ্যের ৯০টিরও বেশি স্থানে এমন দাবানল দেখা গেছে। পাশাপাশি প্রবলবেগে বাতাসের ফলে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে তাপমাত্রা পৌঁছেছে ৩৫ ডিগ্রিতে। খরা অঞ্চলেই এর বিরুপ প্রভাব বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে। চতুর্দিকে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় বিভিন্ন স্থানে নিজগৃহে আটকা পড়েছেন সাধারণ মানুষ,উদ্ধারকর্মীরাও তাদের কাছে পৌঁছতে পারছেন না। বিবিসি,দি গার্ডিয়ান

অস্ট্রেলিয়ার রুরাল ফায়ার সার্ভিস কমিশনার শেন ফিৎসিমন্স জানান,‘আমরা অনেকটা রিমোট এলাকায় রয়েছি। ইমার্জেন্সি লেভেলের এমন একসাথে অনেকগুলো দাবানল ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা এর আগে আমরা দেখিনি।’ শুধুমাত্র নিউ সাউথওয়েলসের একটি অংশেই ১৭টি দাবানল ছড়িয়েছে। এই কর্মকর্তা আরো জানান, আক্রান্তদের উদ্ধারে এক হাজার দমকল কর্মীর পাশাপাশি ৭০টি এয়ারক্রাফটও পাঠিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্স এক টুইটে জানায়, ভয়াবহ আগুন দ্রæত ছড়িয়ে পড়ায় সড়কপথে এমনকি হেলিকপ্টারেও অনেককে তারা উদ্ধার করতে পারছেন না। অস্ট্রেলিয়া উপকূলের প্রায় এক হাজার কিলোমিটার এলাকায় আগুনের শিখা ছড়িয়ে পড়েছে,যার ফলে জরুরি অবস্থা আরো জোরদার করতে হচ্ছে। অনেকটা দেরি হয়ে যাওয়ায় আটকে পড়া অনেককে উদ্ধারের চেয়ে আগুন থেকে নিরাপদে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া শুক্রবার কুইন্সল্যান্ড এবং পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায়ও অগ্নি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দাবানলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ নিউ সাউথ ওয়েলসে সেপ্টেম্বর থেকে এপর্যন্ত ১০০টি দাবানল মোকাবেলা করেছে উদ্ধারকারীরা। গতমাসে নিজের বাড়ি বাঁচাতে গিয়ে দু’জন মারাও গিয়েছেন। গত সপ্তাহে ‘কোয়ালা অভয়ারণ্য’খ্যাত ২ হাজার বনভূমি পুড়ে ছাই হবার পাশাপাশি কয়েকশ বণ্যপ্রাণীও মারা গেছে। এই সপ্তাহের বৃষ্টিপাতে জনমনে কিছুটা স্বস্তি জাগালেও দীর্ঘ সময়ের খরা অধ্যুষিত অঞ্চলের জন্য এটি যথেষ্ট ছিলো না। পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হলে এমন দাবানল আরো ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে সতর্র্ক করেছে কর্তৃপক্ষ।

কর্মকর্তারা জানান, পানি সঙ্কটের কারণে অনেক এলাকায় পর্যাপ্ত সেবা দেয়া যাচ্ছে না। ওয়াটার বম্বিং এয়ারক্রাফটগুলো অনেক দূর থেকে পানি বয়ে নিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনের চেষ্টা করছে। বাস্তবতা হলো, পানি ছাড়া দমকল কর্মীরা তাদর সামর্থের পুরোটা দিতে পারে না।

গত সপ্তাহে সিডনি থেকে ৩৮০ কিলোমিটার দূরের দাবানলের কারণে গোটা সিডনি শহরের আকাশ ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়েছে। দূষিত বাতাসের কারণে এজমা,শ্বাসকষ্টসহ নানারকম শারিরীক জটিলতায় ভ’গতে হয়েছে নাগরিকদের। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে অস্ট্রেলিয়ায় এমন ঘটনা বারবার ঘটছে এবং পরিস্থিতির পরিবর্তন না হলে এমন আরো ঘটতে থাকবে। এবারের গ্রীষ্মে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড অতিক্রম করেছে দেশটি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত