প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শীতের সবজীতে কাঁচাবাজারে স্বস্তি, পেঁয়াজ এখনো ধরা-ছোঁয়ার বাইরে

লাইজুল ইসলাম : রাজধানীর বাজারগুলোতে সবধরনের সবজির উপস্থিতিতে কিছুটা দাম কমতে শুরু করেছে। গত কয়েক সপ্তাহের তুলনায় সবজির দাম প্রকারভেদে ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত দাম কমেছে। তবে এখনো কিছুটা বেশি বলে মনে করেন ক্রেতারা।

শুক্রবার সকালে কারওয়ান বাজারে গিয়ে দেখা গেছে সপ্তাহের বাজার করতে ভীড় জমিয়েছেন ক্রেতারা। এসময় ব্যাংকে চাকুরি করেন আশরাফ উদ্দিন বলেন, সবজির দাম আগের তুলনায় কমেছে। তবে এখনো সেটা স্বস্তির নয়। সামনের দিনগুলোতে আরো কমবে বলে মনে করেন তিনি। মাছের দামও কিছুটা কমেছে। তিনি বলেন, মাছ ও মুরগির দামও কিছুটা কমেছে।

এসময় বিক্রেতারা বলেন, সব ধরনের সবজির দাম কমেছে। তবে, সমানে দিকে দাম আরো কমবে বলে জানা তিনি। বলেন, আরেকটু শীত পরলেই বাজারে সবজির দাম কমে যাবে। সবপণ্যের দাম কেজি প্রতি ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত কমেছে। তবে, এখনও বাড়তি রয়েছে টমেটোর দাম। বাজারে খুচরা প্রতি কেজি মানভেদে টমেটো ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

শীতের সবজি বাঁধাকপি ১৫ থেকে ২৫ টাকা, ফুলকপি ১৫ থেকে ২৫ টাকা, লাউ ৩০ থেকে ৪০ টাকা, জালি কুমড়া ২০ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। সবজির মতই শাকের বাজারেও স্বস্তি ফিরছে। প্রতি আঁটি লাল শাক ৩ থেকে ৫ টাকা, মুলা শাক ৮ থেকে ১০ টাকা, পালং শাক ১০ থেকে ১৫ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

এসপ্তাহে মাছের দামও কিছুটা কমেছে। প্রকার ভেদে ৫০ টাকাও কমেছে। এক কেজি সাইজের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। শিং ৩০০ থেকে ৫৫০ টাকা, পাবদা ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা, পাঙাস ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, তেলাপিয়া ১২০ থেকে ১৪০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। দর কমেছে সবধরনের মুরগি ও ডিমের দাম। তবে অপরিবর্তিত আছে চাল, ডাল ও ভোজ্যতেলের বাজার। তবে এখনো স্বাদ্ধের মধ্যে আসেনি পেঁয়াজ। এখনো দেশি পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২৫ থেকে ১৩৫ টাকায়। তবে আরেকটু কমে বিক্রি হচ্ছে আমদানি কৃত পেঁয়াজ। এদিকে অপরিবর্তিত রয়েছে রশুন ও আদার দাম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত