প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রবাসী নারীর সঙ্গে বিয়ের নাটক করে টাকা হাতিয়ে নিলো প্রতারক সবুজ

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : ওমান প্রবাসী তরুণী সঙ্গে বিয়ের নাটক করে মোটা অংকের টাকা হাতানোর পর হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সবুজ নামের এক প্রতারকের বিরুদ্ধে। কায়িক শ্রমের টাকা হারিয়ে দিশেহারা ওই নারী এখন বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। সংশ্লিষ্ট থানা ও আদালতে মামলা করা হলেও কোনো সুরাহা না হওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছেন প্রতারণার শিকার রানু বেগম ও তার পরিবার।

শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন মিলনায়তনে কান্নাজড়িত কন্ঠে রানু বেগম বলেন, তিনবছর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় হয় সবুজের সঙ্গে। এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে বিয়ের প্রলোভনে দেশে ফেরার কথা বলে সবুজ। প্রেমের টানে দেশে ফিরে বিয়ের পিড়িতে বসেন রানু। কিন্তু প্রতারক সবুজের টাকা হাতানোর নেশা পেয়ে বসে। বিভিন্ন সময় রানুর কাছ থেকে সে প্রায় ১৬ লাখ টাকা নেয়। নিজেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার পরিচয় দেয়া সবুজ বিয়ের তিনমাস যেতে না যেতেই নানা অযুহাতে টাকা দাবি করে। সংসারের কথা ভেবে টাকা ও স্বর্ণালংকার তুলে দেয় সবুজের হাতে রানু।

ইতোমধ্যে সবুজের আগেও দুটি বিয়ে করার খবর জানতে পারেন রানু। এরপরই সবুজের আসল চেহারা প্রকাশ পায়। চাঁদপুর হাজিগঞ্জের বাসা থেকে ডেকে বাইরে নিয়ে ছেলে ধরা বলে গণপিটুনি দেয় রানুকে। ঘটনার সময় সবুজ ও তার আগের স্ত্রী মেঘলা ছিল। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে রানুকে উদ্ধার করে সবুজ ও মেঘলাকে আটক করে চাঁদপুর মডেল থানায় নিয়ে যায়। থানা পুলিশ রানুকে তার নিজের থানা হাজিগঞ্জে মামলা করার পরামর্শ দিয়ে তাকে বাড়ি যেতে বলে। পরে হাজিঘ্হ থানায় অভিযোগ করা হয়। বিষয়টি এখনো তদন্তাধীন। এছাড়া সবুজের বিরদ্ধে নারী নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা করা হয়। আদালতের নির্দেশে মামলাটি ডিবি পুলিশ তদন্ত করছে। বাবা হারা রানু বর্তমানে সবুজের নানা হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। রানু প্রতারক সবুজকে গ্রেপ্তার করে তার পাওনা টাকা আদায়সহ তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে রানুর মা নিলুফা বেগম ও মামাতো ভাই মনিরুজ্জমান রতন উপস্থিত ছিলেন।

সবুজের বিরুদ্ধে আদালতে দায়ের করা নারী নির্যাতন ও যৌতুক মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরির্দশক নুর হোসেন মামুন বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। শিগগিরই আদালতে প্রতিবেদন দেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত