প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিসের আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী এক অভিবাসী মুসলিম যুবক

আসিফুজ্জামান পৃথিল : অভিভাসন বিরোধী কট্টর এক রক্ষণশীল ইমেজ সবসময়ই ধারণ করে এসেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে নিজের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন তিনি। কিন্তু তার নিজের আসনেই তাকে পরতে হচ্ছে এক বিচিত্র পরিস্থিতিতে। ক্ষমতায় আসতে গেলে এক মুসলিম অভিবাসী যুবককে হারিয়ে এমপি হতে হবে বরিস জনসনকে। এনডিটিভি

উত্তর পশ্চিম লন্ডনের শহরতলী উক্সব্রিজ থেকে নির্বাচন করেন বরিস জনসন। সবসময়ই এটি টোরি পার্টির শক্ত ঘাটি হিসেবে পরিচয় পেয়ে আসছে। তবে সম্প্রতি এই আসনে বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পরতে হচ্ছে তাদের।২০১৭ সালের নির্বাচনে এই আসনে মাত্র ৫ হাজার ৩৪ ভোট ব্যবধানে নির্বাচিত হন বরিস। যদি লেবার পার্টি মাত্র ৫ শতাংশ নতুন ভোটারকে নিজেদের দিকে টানতে পারে, তবে বিপদে পরতে পারেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।এই ভোট টানতে তরুণ অভিবাসী আলি মিলানিকে মনোনয়ন দিয়েছে লেবার পার্টি। ধারণা করা হচ্ছে এই আসনে দুজনের তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতে পারে।

নিজ আসনে বাস করা ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের জন্য জরুরী নয়। বরিসও উক্সব্রিজে বসবাস করেন না। ফলে ভোটারদের সঙ্গে তার দূরত্ব রয়েছে। এমনকি স্থানীয় জনসভায়ও তার উপস্থিতি প্রায় নেই বললেই চলে।দলীয় কর্মীরাও তার প্রতি বেশ নাখোশ।তবে ২৫ বছর বয়সী আলির জন্য এরকম কোনো সমস্যা নেই। স্থানীয় ব্রুনওয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সাবেক ছাত্র বলছেন, যে ব্যক্তি ভোটারদের চেনেন পর্যন্ত না, তাকে জনগন ভোট দেবে না। তার অভিযোগ, হিথরো বিমানবন্দরের ৩য় রানওয়ে রুখতে পারেননি। ফলে এই আসনের ভোটারদের পরতে হয়েছে বুলডোজারের সামনে।এটিকেই ইস্যু বানিয়ে এমনি নির্বাচিত হতে চান আলি। সম্পাদনা : ইকবাল খান

সর্বাধিক পঠিত