প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্রিকেটারদের দাবি ও পাপনের কঠোর হওয়া নিয়ে যা বললেন ক্রিকেট বিশ্লেষকরা

শিউলী আক্তার : বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে আগে না গিয়ে ১১ দফা দাবি নিয়ে সংবাদমাধ্যমে এসে ধর্মঘট ডেকেছে বাংলাদেশে ক্রিকেটাররা। এতে দেশের ক্রিকেটের মান ক্ষুন্ন হয়েছে বলে মনে করছে ক্রিকেট বিশ্লেষকরা। এতে শুধু যে ক্রিকেটাররা ভুল করছে তা নয়। পরের দিন সংবাদ সম্মেলনে কঠোর সমালোচনা করেছেন বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সভাপতি চাইলে সব সমস্যার সমাধান করতে পারতেন। কিন্তু তিনি সেটি না করে আরো জটিলতা বাড়িয়ে দিয়েছেন। তবে ক্রিকেট বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এখনো সময় আছে আলোচনায় বসে দ্রুত সময়ের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান করা উচিত। সূত্র : সময়টিভি

এই বিষয় নিয়ে বিসিবি সাবেক পরিচালক খন্দকার জামিল বলেন, ক্রিকেটাররাও ভুল করেছেন। তারাও প্রক্রিয়াটা ফলো করেনি।

সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক পবিত্র কুন্ডু বলেন, এ সমস্যার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিলো বিশ্বকাপের পর থেকে।

পাপন তার প্রায় ঘণ্টা দেড়েকের সংবাদ সম্মেলনে একই কথা বারবার বলেছেন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে। তবে সবচায়ে বেশি দৃষ্টিকটু ছিলো কয়েকজন ক্রিকেটারের প্রতি ব্যক্তিগত আক্রমণ। দায়িত্বশীল পদে থেকে তার এমন আচরণে হতবাক সবাই। সঙ্গে যে ক্রিকেটাররা লাল সবুজের পতাকে বিশ্ব দরবারে করেছে সমুজ্জ্বল, তাদের ষড়যন্ত্রকারীর তকমা দেয়ায়, বিস্মিত বিশ্লেষকরা।

বিসিবি সাবেক পরিচালক খন্দকার জামিল বলেন, পাপনের অনেক ক্ষোভ থাকতে পারে, রাগ থাকতে পারে, অনেক আবেগ থাকতে পারে। সবকিছু ঠিক আছে। কিন্তু দিন শেষে তিনি বিসিবি প্রেসিডেন্ট।

সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক পবিত্র কুন্ডু বলেন, কোনো ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে তিনি এমন কথা বলতে পারেন না। কারণ তারা জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করে। প্রতিটা খেলোয়াড়ের ছোট ছোট অবদান থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেট আজ এ জাগয়ায় এসেছে।

সামনেই ভারত সফর। তাইতো বড় প্রশ্ন বিসিবি ক্রিকেটারদের মধ্যে উদ্ভূত এ সমস্যা সমাধানে উপায়টা কী? সে টোটকাও দিলেন বিশ্লেষকরা। বললেন ইগোকে পাশ কাটিয়ে দায়িত্বটা নিতে হবে ক্রিকেট বোর্ডকেই।

বিসিবি সাবেক পরিচালক খন্দকার জামিল আরও বলেন, একে অপরকে বিপদে ফেলার চেষ্টা আলটিমেটলি দেশের ক্রিকেটের ক্ষতি। সামনে ভারত সফর। এ আন্দোলনকে ঘিরে যেনো সফরে কোনো প্রভাব না পড়ে।

সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক পবিত্র কুন্ডু বলেন, ক্রিকেট বোর্ডেরই দায়িত্বটা বেশি। খেলোয়াড়দের ডেকে অবশ্যই আলোচনা করা উচিত।

আর ভবিষ্যতে যাতে এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে না হয় সে জন্য বিসিবিকে আরো পেশাদার হওয়ার পরামর্শ ক্রিকেট বিশ্লেষকদের।

সর্বাধিক পঠিত