প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছাত্র রাজনীতিকে সুস্থ ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে, বললেন জি.এম.কাদের

ইউসুফ বাচ্চু : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যন এবং বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেছেন, ছাত্র রাজনীতির গৌরবাজ্জ্বল ঐতিহ্য এখন হারাতে বসেছে। তাই বিপর্যয় থেকে উত্তরণের জন্য ছাত্র রাজনীতিকে সুস্থ ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি বলেন, ছাত্ররা এ জাতির ভবিষ্যৎ। সেই ভবিষ্যৎকে আমরা অন্ধকারের পথে ঠেলে দিতে পারি না। আমি জাতীয় ছাত্র সমাজকে আলোর বর্তিকা হিসেবেই গড়ে তুলতে চাই।

সোমবার জাপার বনানীস্থ কার্যালয়ে জাতীয় ছাত্রসমাজের নেতবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।
জিএম কাদের বলেন, বর্তমান ছাত্র রাজনীতি যে পথে গেছে-তা জাতির জন্য একটি অশনি সংকেত। জাতীয় ছাত্রসমাজের প্রত্যেক নেতা-কর্মী এরশাদের আদর্শে উজ্জীবিত হবে। তাদেরকে নিজেদের আদর্শের প্রতীক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এরশাদ কখনো ছাত্রসমাজকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করতে চাননি। তিনি ছাত্রদের উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত হবার দীক্ষা দিয়েছেন।

এই মতবিনিময় সভায় আগামী ১৫ নভেম্বরের মধ্যে জাতীয় ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠানের তাগিদ দেয়া হয়। ছাত্রসমাজের নেতৃবৃন্দ উল্লেখিত সময়ের মধ্যে সম্মেলন আয়োজনের জন্য দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
মতবিনিময় শেষে সম্মেলন মনিটরিং সেল গঠন করা হয়। ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সম্মেলন আয়োজনের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে আহ্বায়ক করে ৬ সদস্যের একটি মনিটরিং সেল গঠন করেছেন।

এই সেলে অন্য সদস্যরা হলেন- সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সুনীল শুভরায়, এ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ-ই-আজম, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান। পরবর্তীতে জাতীয় ছাত্রসমাজের সাবেক নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে ছাত্রসমাজের কমিটি নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে।
এসময় জাপার পেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভরায়, যুগ্ম মহাসচিব সুলতান আহমেদ সেলিম, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান, যুগ্ম ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক- মিজানুর রহমান মিরু উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত