প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কলকাতার ৬ষ্ঠ নোবেল বিজয়ী অভিজিৎ ব্যানার্জী

মরিয়ম আদরী: কলকাতার সাথে নোবেল পুরস্কারের একটা গভীর সম্পর্ক রয়েছে। শুধু কলকাতা থেকেই এ পর্যন্ত ছয়জন নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। তারমধ্যে এবছর অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ ব্যানার্জী কলকাতার ষষ্ঠতম ব্যক্তি হিসেবে বিশ্বে দারিদ্র্য বিমোচনে পরীক্ষামূলক পদ্ধতি উদ্ভাবনের স্বীকৃতিস্বরূপ অর্থনীতিতে নোবেল বিজয়ী হয়েছেন। রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস এ পুরস্কার ঘোষণা করে। দ্য প্রিন্ট

অভিজিৎ ১৯৬১ সালে ভারতের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেছেন। তিনি সাউথ পয়েন্ট এবং কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে ১৯৮১ সালে অর্থনীতিতে বিএস ডিগ্রী অর্জন করেছেন এবং ১৯৮৩ সালে দিল্লির জওহরলাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ ডিগ্রী অর্জন করেছেন।

১৯১৩ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কলকাতার প্রথম ব্যক্তি যিনি ‘গীতাঞ্জলী’ কাব্যের জন্য সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন।

১৯৩০ সালে স্যার চন্দ্রশেখর ভেঙ্কট রমন কলকাতা থেকে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে বিক্ষিপ্ত আলোর ওপর কাজ করে পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ে প্রথম নোবেল বিজয়ী ছিলেন। ১৯২৯ সালে সি.ভি রমনকে ‘স্যার’ উপাধি দেয়া হয়েছিল।

আলবেনীয় বংশোদ্ভূত মাদার তেরেসা ভারতে ১৯৫০ সালে তিনি মিশোনারী অব চ্যারিটি (এমওসি) প্রতিষ্ঠা করে বিশ্বব্যাপী ধর্মপ্রচারণা, অসহায় মানুষদের পাশে থাকার স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৭৯ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। ১৯৯৭ সালের ৫ সেপ্টেম্বর তিনি কলকাতা শহরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। কলকাতা শহরে এখনও এমওসি’র সদরদপ্তর বিদ্যমান রয়েছে।

কলকাতার চতুর্থ ব্যক্তি হিসেবে অমর্ত্য সেন ‘দারিদ্র্য ও দুর্ভিক্ষ’ বিষয়ে গবেষণা করে ১৯৯৮ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি কলকাতার বোলপুরের শান্তি নিকেতনে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং কলকাতা প্রেসিডেন্সী কলেজে অর্থনীতিতে বিএ ডিগ্রী অর্জন করেছেন।

রোনাল্ড রস কলকাতার পঞ্চম ব্যক্তি হিসেবে ম্যালেরিয়ার প্রতিষেধক আবিষ্কার করে ১৯০২ সালে চিকিৎসায় নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন। তার জন্ম ১৮৫৭ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশে এবং মৃত্যু ১৯৩২ সালে। সম্পাদনা: রাশিদ রিয়াজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত