প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজধানীতে চাকরির নামে প্রতারণা আটক ৮

সুজন কৈরী : রাজধানীর উত্তরা থকে ভুয়া চাকরিদাতা প্রতারক চক্রের ৮ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৪।

বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন- গিয়াসউদ্দিন পিন্টু ওরফে আকাশ, হাসান গাজী, বিল্লাল শেখ, শেখ শের আলী রাজু, গনেশ প্রসাদ সাধন, সোহাগ, আজাদুল ইসলাম ও রশি আক্তার। চক্রটি ৩/৪ বছর ধরে কাজ করছে এবং প্রতারণার মাধ্যমে ২ থেকে ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৪ জানিয়েছে, তাদের কাছ থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন শূন্য পদে অফিস সহকারী পদে এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে যোগদানের ভুয়া নিয়োগপত্র, এপি ফাউন্ডেশনের মানি রিসিপ্ট, গোল্ডেন লাইন মেডিকেল সেন্টারের সীল যুক্ত খালী মেডিকেল চেক-আপ ফরম, এপি ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডের বাধাই করা প্রজেক্ট প্রাফাইল, এপি ফাউন্ডেশনের টাইপকৃত প্যাডে চেয়ারম্যান, পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা বরাবর প্রদত্ত চিঠির কপি, এপি ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন কর্মকর্তা কর্মচারীর নামযুক্ত পদবীর সীল, কম্পিউটারের সিপিইউ, ল্যাপটপ জব্দ করা হয়েছে। উত্তরায় প্রতরণা কাজে ব্যবহারের জন্য তাদের ২টি অফিস এবং জামালপুরে লোক দেখানো ভ‚য়া ট্রেনিং সেন্টার রয়েছে। প্রতারকচক্রটি ৩/৪ বছর ধরে কাজ করছে এবং প্রতারণার মাধ্যমে ২/৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকার চেয়ারম্যান, মেম্বারের নিকট বিভিন্ন চিঠি প্রদান করে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রের সদস্যরা।

র‌্যাব-৪ আরো জানায়, চক্রটি কয়েকটি ধাপে প্রতারণা করছিলো। এরমধ্যে বিভিন্ন এলাকায় অফিস ভাড়া করে জাঁকজমকপূর্ন চোখ ধাঁধাঁনো ডেকোরেশন করে যা গ্রাহককে সহজেই আকৃষ্ট করে। চক্রটি বিভিন্ন সংবাদ পত্রিকার মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রথমে অফিসের বিভিন্ন পদের লোক নিয়োগ করে থাকে। চাকুরী প্রত্যাশীদের সংশ্লিষ্ট কাগজপত্রসহ উর্দ্ধতন ভ‚য়া কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যবস্থা করে এবং চাকুরী প্রত্যাশীদের যাবতীয় কাগজপত্র লোক দেখানো যাচাইবাচাই করে চাকুরী সংক্রান্তে বিভিন্ন প্রকার শর্তাদি আরোপ করতো। চাকরি প্রত্যাশীরা শর্তাবলী মেনে নিলে চাকরি দেয়ার বিনিময়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে মৌখিক অথবা লিখিত চুক্তি সম্পন্ন করতো। এরপর চক্রের সদস্যরা সংশ্লিষ্ট চাকরি প্রার্থীকে সচিবালয়ের ভেতরে নিয়ে মৌখিক পরীক্ষা সম্পন্নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতো। পরে চাকরি প্রত্যাশীদের মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণসহ ভুয়া নিয়োগপত্র প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে নিয়োগপত্র দিয়ে চুক্তি অনুযায়ী টাকা গ্রহণ করতো। চক্রটি চাকরি প্রার্থীকে হাসপাতালের ওয়ার্ড বয়, স্বাস্থ্য সহকারী, স্বাস্থ্য সেবিকা, তাদের অফিসের আঞ্চলিক ম্যানাজার এবং বিভিন্ন ধরনের চুক্তি, অস্থায়ী ভিক্তিক ও মাস্টার রোলে ভ‚য়া চাকরিতে ২/১ মাসের জন্য নিয়োগ দিতো এবং বেতন দিতো। একপর্যায়ে চাকরি প্রার্থীরা জানতে পারেন তাদের নিয়োগপত্র এবং চাকরি ভ‚য়া এবং তারা প্রতারণার স্বীকার হয়েছেন।

র‌্যাব জানায়, প্রতারকচক্রটি এপি ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডের নকল লগো ব্যাবহার করে প্রতিষ্ঠানের অধীনস্থ এপি এক্সপোর্ট এন্ড ইমপোর্ট, এপি ফিশারিজ এন্ড এগ্রিকালচার, এপি ইভেন্ট ম্যানেজম্যান্ট, এপি সিকিউরিটি ফোর্স এন্ড ক্লির্নার সার্ভিস, এপি ফাউন্ডেশন, এপি ফ্যাশন নামক বিভিন্ন ভ‚য়া প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছিলো। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত