প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আরিফ জেবতিকের স্ট্যাটাসে বিএসএফ-বিজিবির নৈতিক পার্থক্য

আরিফ জেবতিকের ফেসবুক থেকে : ৯৮ সালে বরাক ভ্যালি সাংস্কৃৃতিক উৎসব শেষ করে আমরা পরদিন সীমান্ত পার হচ্ছিলাম। ঐ সময়ে বিএসএফ এর এক জওয়ান আমাদের একটি নৌকা লক্ষ করে গুলি করে। আমাদের দলের সবাই নদীতে ঝাপিয়ে পড়ে প্রাণ রক্ষা করে। আমরা কয়েকজন তখনও ভারত সাইডে পরবর্তী নৌকার জন্য অপেক্ষা করছিলাম। আক্রান্ত নৌকার অনেকে সাঁতরে ভারত সাইডে ফেরত আসে। আমাদের সকল ব্যাগপত্তর, নাটকের প্রপস, সাউন্ড সিস্টেম সহ অনেক জিনিস পানিতে তলিয়ে যায়।

গুলির পর সেখানে লোক জমে যায়। ভারতীয় ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা ছিলেন বাঙালি, তিনি আমাদের পক্ষ নিয়ে চিৎকার করতে থাকেন। কেন ইমিগ্রেশন করে যাওয়া বৈধ একটা নৌকার উপরে গুলি করা হলো!

বিএসএফ এর পেটি কমান্ডার যখন সেই বিএসএফ জওয়ানকে খবর দিয়ে নিয়ে আসেন, তখনও তার পকেটে ভারতীয় লোকাল মদের পেট বোতলের ডগা উকি দিচ্ছিল। সে ছিল হাফ লোড, ডিউটি পোস্টে বসে বোতল গিলছিল। এটা বাংলা তো দূরের কথা, ভালোমতো হিন্দিও বলতে পারে কী না আমার সন্দেহ হচ্ছিল। এই ঘটনা নিয়ে সে সময় যুগশঙ্খ পত্রিকায় অনেক বড় করে খবর প্রকাশিত হয়েছিল।

সুতরাং, এখন যখন আমাদের কমান্ডার বলেছে, ‘ আমরা এমন ড্রাংক না যে ডেকে এনে গুলি করে দেব।’ তখন উনি কী মিন করেছে সেটা বুঝতে পেরে একগাল হাসলাম।
ব্রাভো ব্রাদার।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত