প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতেই ‘সমাধান’ মনে করেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা

আসিফ কাজল : বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেলেই চলমান আন্দোলনের সমাধানের পথ পাওয়া যাবে বলে মনে করেন আন্দোলনরত নন-এমপিও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা।

শুক্রবার নন-এমপিও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে এমপিও নীতিমালা ২০১৮-এর স্থগিতপূর্বক স্বীকৃতিই একমাত্র মানদণ্ড ধরে শুধু স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সকল নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ এমপিওভুক্তির বিষয়টি তুলে ধরতে চাই আমরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার ১০ হাজার শিক্ষক গণভবনের উদ্দেশে পদযাত্রায় পুলিশ বাঁধা দেয়। আন্দোলনরত শিক্ষকরা দাবি করে বলেন, আমরা স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সকল নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ এমপিওভুক্তির আওতায় দেখতে চাই।

গত মঙ্গলবার সকাল থেকে রাজধানীতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়েছেন দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা এই শিক্ষক-কর্মচারীরা। আন্দোলনের অংশ নেয়া রেজাউল করিম নামে এক শিক্ষক বলেন, ‘এমপিও নীতিমালা-২০১৮’ ভুলে ভরা ও নানা অসংগতিপূর্ণ। তিনি মনে করেন, এমপিওভুক্তির নীতিমালা অনুসরণ করে এমপিও তালিকা প্রকাশ হলে দেশের বেসরকারি শিক্ষাব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্থ হবে। সরকার ব্যাপক জনসমালোচনার মুখে পড়বে, জন-অসন্তোষ তৈরি হবে। আমরা সেটা চাই না।

ননএমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, আমরা এর আগেও আন্দোলন করেছি। গত মার্চেও আমরা আন্দোলন করেছি। আশ্বাসে কর্মস্থলে ফিরে গিয়েছিলাম। কিন্তু দাবি বাস্তবায়ন হয়নি। এমপিওভুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত হলেও ভুলে ভরা নীতিমালা তৈরি করে নতুন সংকট সৃষ্টি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, মন্ত্রণালয়ে জানিয়েছি, ভুল ও অসঙ্গতিগুলো সংশোধন করার অনুরোধ করেছি। প্রতিশ্রুতি দেয়া হলেও তা সংশোধন না করে এপিওভুক্তির নতুন তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে। আমরা প্রত্যাশা করি প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতেই সব সমস্যার সমাধান হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত