প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শীর্ষ সন্ত্রাসী সহযোগীদের যুবলীগে পদ দিয়েছিলেন সম্রাট

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : ক্যাসিনো গডফাদার ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের হাত ধরে শীর্ষ সন্ত্রাসীদের সহযোগীরা যুবলীগে অনুপ্রবেশ করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে এমন বেশকজন সহযোগীর নামও বলেছেন সম্রাট। শীর্ষ সন্ত্রাসীদের অনুরোধে তিনি তাদের দক্ষিণ যুবলীগে পদ দিয়েছেন। সম্রাট যাদের নাম বলেছেন, তা যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে।

এর আগে সম্রাট বলেছেন, দক্ষিণ যুবলীগের সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন শীর্ষ সন্ত্রাসী জাফর আহম্মদ মানিক ও সৈয়দ নাজমুল মাহমুদ মুরাদের সহযোগী হিসেবে পরিচিত। তাদের অনুরোধে সোহরাবকে গুরুত্বপূর্ণ পদ দেয়া হয়। এ দুই শীর্ষ সন্ত্রাসীর সঙ্গে সমঝোতা করে তাদের আরেক সহযোগী খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকেও সাংগঠনিক সম্পাদক করেন সম্রাট। তাকে যুবলীগে বড় পদ দিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানেরও তদবির ছিল।

দক্ষিণ যুবলীগের সহসভাপতি আরমানের সঙ্গে শীর্ষ সন্ত্রাসী কাইল্যা পলাশের ঘনিষ্ঠতা রয়েছে। কাইল্যা পলাশ নিজেই যুবলীগ দক্ষিণের পদপ্রত্যাশী ছিল। কিন্তু তার পরিবর্তে আরমানকে পদ দেয়া হয়। এছাড়া দুই যুগ্ম সম্পাদক রিয়াজুল হক খান মিল্কী এবং জাহিদ সিদ্দিকী তারেককেও যুবলীগের পদ দেয়ার ক্ষেত্রে শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের ভূমিকা ছিল।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের কমিটি গঠনের কিছুদিন পর ২০১৩ সালের জুলাইয়ে গুলশানে মিল্কীকে গুলি করে হত্যা করা হয়। পরদিন এই খুনের সঙ্গে সরাসরি জড়িত তারেক র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা যায়। এই পাঁচজন ছাড়া সন্ত্রাসীদের অনুরোধে তাদের অনেক সহযোগীর যুবলীগে অনুপ্রবেশ ঘটেছে বলেও গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য রয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার রমনা থানায় দায়ের করা অস্ত্র ও মাদক আইনের দুটি মামলায় সম্রাটকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। মামলা র‌্যাবে হস্তান্তর করায় বৃহস্পতিবার বিকালে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গোয়েন্দা পুলিশের কাছ থেকে র‌্যাব-১ তাদের হেফাজতে নেয়।

সর্বাধিক পঠিত