প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশের জন্য সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে, বললেন ফিফা সভাপতি

এল আর বাদল : ফুটবল বিশ্বের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফেডারেশন ইন্টারন্যাশনাল ডি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ফিফা) সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বৃহস্বাপতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।দেশের ফুটবল নিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘ সময় কথা বলেন।

এ সময় তিনি ফুটবলের উন্নয়নে বাংলাদেশের নেয়া পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, সত্যি বলতে আমি এমন একটি দেশকে খুঁজে পেয়েছি যেখানে শুধু ফুটবল খেলাই হয় না, এখানকার লোকদের স্বপ্নেও ফুটবল। আর এটাই ফিফার মূল উদ্দেশ্য।তিনি বলেন, বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নয়নে আমরা আমাদের সমর্থন এবং সহযোগিতা অব্যাহত রাখবো।

ফিফা সভাপতিকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত মঙ্গলবার বাংলাদেশে ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচ দেখে আমারও মনে হয়েছে বাংলাদেশের ফুটবল অনেক এগিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ফুটবলকে দেশের একটি জনপ্রিয় খেলা হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, আমার দাদা এবং বাবা ফুটবল খেলতেন।

শেখ হাসিনা বলেন, তার ভাই শেখ কামাল বাংলাদেশের শীর্ষ স্থানীয় খেলাধুলার সংগঠন আবাহনী ক্রীড়া চক্রের প্রতিষ্ঠাতা। দেশের খেলাধুলার উন্নয়নে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে তিনি বলেন, সারাদেশে ৪৯২টি মিনি স্টেডিয়াম স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

পরে ফিফা সভাপতি বলেন, ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচটি আমিও দেখেছি। চমৎকার খেলেছে বাংলাদেশ। ভারত সৌভাগ্য প্রসূত গোল পাওয়ায় ম্যাচটি জিততে পারেনি বাংলাদেশ। ওই ম্যাচ দুর্দান্ত খেলেছে যারা, তাদের দেশেই আমি অবস্থান করছি।

সত্যিই এদেশের মানুষ ফুটবল প্রিয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বেরিয়ে বাফুফে ভবনে যান ফিফা সভাপতি। সেখানে তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা জানায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। বিকাল ৩টায় নগরীর পাঁচতারা হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন ইনফান্তিনো। তিনি বলেন, স্পোর্টসের যে কোনো ইভেন্টের উন্নয়নে টাকাই হচ্ছে মূল ভিত্তি। তাই বাংলাদেশের ফুটবলের উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদেরও আর্থিক সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে। তিনি ফিফা’র সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষার জন্যও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে (বাফুফে) পরামর্শ দেন। ফিফা সভাপতি এদিন নারী ফুটবলের উপরও জোড় দেন। তিনি বলেন, বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের নারী ফুটবলও এগিয়ে যাচ্ছে। আরও ভালো করতে এই ইভেন্টেও তিনি পর্যাপ্ত অর্থ ব্যয় করতে বললেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ফিফা সভাপতি আরো বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল নিয়ে ফিফার অনেক কাজ করছে। বিশেষ করে ভেন্যু আর ফুটবলের মানোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে ফিফা। তিনি ২০২২ সালে কাতারে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপ ভেন্যুর প্রশংসা করে বলেন, কাতারের প্রতিটি ভেন্যুতে গেলে মনে হবে এ যেনো অন্য জগৎ। নিঃসন্দেহে মনমুগ্ধকর স্টেডিয়াম তৈরি করেছে কুয়েত সরকার। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজি সালাউদ্দিন, সিনিয়র সহ সভাপতি ও সংসদ সদস্য সালাম মুর্শেদী, সহ সভাপতি কাজি নাবিল আহমেদ, তাবিথ আউয়াল, মহিলা ফুটবলের চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরন প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত