প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শনিবার বসছে বিশেষ পার্লামেন্ট অধিবেশন
ইইউয়ের সঙ্গে বরিসের নতুন ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখান বিরোধীদের

আসিফুজ্জামান পৃথিল : ব্রাসেলসে চলমান ইইউ সম্মেলনের ঠিক আগমুহুর্তে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।নতুন চুক্তিটি প্রায় থেরেসা মের করা চুক্তিটির মতোই।তবে নতুন চুক্তি বলছে, ২০২০ সাল পর্যন্ত কিংবা আরও বেশি সময় ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইন মেনে চলবে যুক্তরাজ্য। এর ফলে ব্যবসা বাণিজ্যগুলো মানিয়ে নেয়ার সুযোগ পাবে। ‘বিচ্ছেদ বিল’ হিসেবে যুক্তরাজ্য ইইউকে ৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলার দেবে। -বিবিসি, সিএনএন, ডেইল মেইল, দ্য গার্ডিয়ান।

চুক্তি অনুযায়ী যুক্তরাজ্যে থাকা ইইউ নাগরিক এবং ইইউতে থাকা ব্রিটিশ নাগরিকদের সবরকমের অধিকার সংরক্ষণ করা হবে। পরিবর্তিত চুক্তি অনুযায়ী উত্তর আয়ারল্যান্ড ইউরোপীয় একক বাজারেই থাকছে। তথাকথিত ব্যাকস্টপ, সরিয়ে ফেলা হয়েছে। ফলে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ইউরোপীয় কাস্টমস ইউনিয়নের কোনো দ্ব›দ্ব হবে না। উত্তর আয়ারল্যান্ড যুক্তরাজ্যের কাস্টমস অঞ্চলেই থাকছে। ব্রেক্সিটের পর কোনো চুক্তি করতে হলে তাদের যুক্তরাজ্যের অনুমোদন লাগবে। আবার এক পর্যায় পর্যন্ত তারা ইইউ কাস্টমস ইউনিয়নেও থাকবে। উত্তর আয়ারল্যান্ডে প্রবেশ করা পন্যে শুল্কারোপ করবে না যুক্তরাজ্য। ২০১৭ সাল থেকে স্থগিত করা আছে উত্তর আয়ারল্যান্ডের পার্লামেন্ট। সেটিকেও সচল করার কথা বলা আছে চুক্তিতে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জিয়ান-ক্লদে জঙ্কার দুজনেই এটিকে ভালো চুক্তি বলেছেন। জঙ্কার বলেছেন ব্রেক্সিট সময়সীমা বাড়ানোর আর কোনো দরকার নেই। তবে এই চুক্তিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের করা চুক্তির চেয়েও জঘন্য বলে অভিহিত করেছেন। একই সঙ্গে এই চুক্তি প্রত্যাখান করেছে আইরিশ সরকার, স্কটিশ ন্যঅশনাল পার্টি সহ সব বিরোধী দল।

ব্রিটিশ এমপিরা শনিবার এই চুক্তির বিষয়ে বিতর্ক এবং পাস করার জন্য বসবেন। শনিবার সাধারণত ব্রিটিশ পার্লামেন্টে কোনো ধরণের কার্যক্রম হয়না। কিন্তুে সেই রীতি এবার ভাঙছেন ব্রিটিশ এমপিরা। ২৮৭-২৭৫ ভোটে এই সংক্রান্ত একটি সংশোধনী পাশ করেছেন এমপিরা। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত