প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথমবারের মতো পরিযায়ী হাঁসের গতিপথ পর্যবেক্ষণ, বাংলাদেশ থেকে উত্তর চীনে যাওয়া কিসওয়া ফিরে এলো

আসিফুজ্জামান পৃথিল : এবছরের মধ্য ফেব্রুয়ারিতে বুনো হাঁস কিসওয়ার শরীরে লাগানো হয়েছিলো একটি জিপিএস ডিভাইস। সে বেড়াতে এসেছিলো বাংলাদেশের টাঙ্গুয়ার হাওড়ে। শীত শেষে সে আবার উড়াল দেয় তার জন্মভূমি কুইনহাইতে। গরমকালটি সেখানে কাটিয়ে আবারও বাংলাদেশে ফিরে এসেছে কিসওয়া।

গারগেনি প্রজাতির এই ছোট্ট হাঁসটি জিপিএস লাগানোর পরে মোট সাড়ে ৩ হাজার কিলোমিটার সফর করেছে। আইসিইউএন এর একটি সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতায় ৫ ফেব্রুয়ারি জিপিএসটি লাগানো হয়। বাংলাদেশ বন বিভাগ এবং বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের সহায়তায় কাজটি করে সুইডেনের লিনাইউস বিশ্ববিদ্যালয়। এতাদিন পরিযায়অ পাখিদের গতিপথের বিষয়ে অনেক কিছুই অজানা ছিলো। এতোদিন জানা ছিলো না এই পাখিগুলো একই জলাশয়ে বারবার ফিরে আসে কিনা। তবে এই জিপিএস রোপনের কারণে এখন অনেক কিছুই পরিস্কার হয়ে যাবে বলে মনে করছেন গবেষকরা। মোট ৪৪টি পাখিতে জিপিএস রোপন করা হয়েছিলো। বাকি পাখিগুলো এখনও ফেরেনি।

পাখিটি গ্রীস্মকাল কাটিয়েছে কুইনহাই এর সেনিই হ্রদে। এরপর আবারও তার শীতকালীন নিবাস বাংলাদেশে ফিরেছে। গত ৮ মাসে পাখিটি দুবার পারি দিয়েছে হিমালয় পর্বতমালা। হাঁসটি বর্তমানে যমুনা নদীর কোনো এক চরে অবস্থান করছে। চরটির অবস্থান বগুড়া জেলায়। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত